একটি সামরিক ঘাঁটিতে বিস্ফোরণের এক সপ্তাহ পর ক্রিমিয়ায় এবার অস্ত্রের গুদামে ধারাবাহিক বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

রাশিয়ার কর্মকর্তারা বলছেন, বিস্ফোরণের কারণে আগুন ধরে গেছে উপদ্বীপটির ঝাঁকোই এলাকায়। এ ঘটনাকে নাশকতা হিসেবে দেখা হচ্ছে। খবর বিবিসির।

পরে ভিন্ন এক ঘটনায় একটি বিদ্যুতের উপকেন্দ্রে আগুন ধরে যায় এবং একটি রেলপথ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে আগুন। ছবি: রয়টার্স

এর আগে গত সপ্তাহে ক্রিমিয়ায় একটি সামরিক ঘাঁটিতে বিস্ফোরণে রাশিয়ার বেশ কিছু যুদ্ধবিমান ধ্বংস হয়ে যায়। ইউক্রেন এ হামলার দায় সরাসরি স্বীকার করেনি।

অস্ত্রের গুদামে বিস্ফোরণের বিষয়ে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, আগুন ছড়িয়ে পড়েছে মাইস্ক গ্রামের কাছে একটি সাময়িক অস্ত্রের গুদামে মস্কোর সময় ৬টা ১৫ মিনিটে। আগুনের সূত্রপাত কীভাবে তা নির্ণয়ে তদন্ত চলছে।

মন্ত্রণালয় আরও জানায়, এ বিস্ফোরণে ‘গুরুতর’ হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

তবে অঞ্চলের প্রধান সের্গেই আকসিওনভ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে প্রায় দুই হাজার মানুষ পাশের গ্রামে চলে গেছে এবং দুই ব্যক্তি আহত হয়েছেন।


তিনি বলেন, একজন আহত হয়েছেন বোমার টুকরোর আঘাতে এবং অপরজন আহত হয়েছেন দেয়াল চাপায়। সৌভাগ্যবশত, তাদের জীবন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় নেই।

এ ক্রিমিয়া অঞ্চল রাশিয়া দখল করে নিয়েছিল ২০১৪ সালে। যখন রাশিয়া এ বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে নতুন করে হামলা শুরু করে তখন এ উপদ্বীপকে তারা ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করে। এর মাধ্যমে দক্ষিণ ইউক্রেনের বিশাল অংশ দখল করতে সক্ষম হয়।