চীন ও তাইওয়ান দ্বীপের মধ্যবর্তী তাইওয়ান প্রণালির মাঝ বরাবর একটি কল্পিত রেখা এঁকে প্রায় ৭০ বছর ধরে শান্তি বজায় রেখেছিল। কিন্তু চীনের আধুনিক নৌবাহিনী তাদের শক্তি জাহির করতে থাকায় তথাকথিত এই মধ্যরেখাটি ক্রমেই অর্থহীন হয়ে উঠছে।

স্নায়ুযুদ্ধের এ সময়ে কমিউনিস্ট চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থিত তাইওয়ানের মধ্যে উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৫৪ সালে এক মার্কিন জেনারেল এই রেখাটি উদ্ভাবন করেন। চীন কখনোই এই রেখাটি আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার না করলেও দেশটির গণমুক্তি ফৌজ অনেকাংশে এটাকে মেনে চলেছে।

কিন্তু কয়েক সপ্তাহ আগে মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইপে সফর করলে বেইজিং অত্যন্ত ক্ষিপ্ত হয়। এর প্রতিক্রিয়ায় তাইওয়ান দ্বীপকে ঘিরে থাকা জলসীমায় ব্যাপক সামরিক মহড়া চালায় চীন। এখন দেশটির অনেক শক্তিশালী হয়ে ওঠা নৌবাহিনীর জাহাজগুলো নিয়মিতভাবে ওই মধ্যরেখা লঙ্ঘন করে চলছে।

অঞ্চলটি নিরাপত্তা পরিকল্পনার বিষয়ে জ্ঞাত এক তাইওয়ানি কর্মকর্তা বলেন, আমরা যেন মধ্যরেখা ছেড়ে দেই সে লক্ষ্য নিয়ে তারা আমাদের ওপর অনবরত চাপ বাড়াচ্ছে। তারা এটাকে বাস্তব রূপ দিতে চাচ্ছে। তবে বিষয়টি স্পর্শকাতর হওয়ায় নিজের পরিচয় প্রকাশে রাজি হননি তিনি।

চীনের আপত্তি উপেক্ষা করে আরেক মার্কিন সিনেটর তাইওয়ানে গেছেন। সিনেটের 'কমার্স অ্যান্ড আর্মড সার্ভিসেস কমিটির' এই আইনপ্রণেতা বৃহস্পতিবার তাইওয়ান পৌঁছান। এ নিয়ে চলতি মাসে তৃতীয় দফা কোনো উচ্চ পর্যায়ের মার্কিন কর্মকর্তা দ্বীপটি সফরে এলেন।

চলতি মাসে এক সংবাদ সম্মেলনে তাইওয়ানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী যোশেফ উ বলেছেন, স্থিতাবস্থা বদলানোর চেষ্টা সহ্য করা হবে না। তাইওয়ান প্রণালিতে স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে, শান্তি রক্ষা করতে মধ্যরেখাটি যেন সেখানে বজায় থাকে, তা নিশ্চিত করতে আমাদের সমমনা অংশীদারদের সঙ্গে আমাদের হাত মেলানো দরকার বলেন উ। অন্য কর্মকর্তারা ও নিরাপত্তা বিশ্নেষকরা সতর্ক করে বলেছেন, বিপজ্জনক পরিস্থিতির ঝুঁকি বাড়ানো ছাড়া ওই লাইনটি রক্ষা করা দ্বীপটির পক্ষে কঠিন হবে।

যদি চীনের বাহিনী জলসীমার ১২ নটিক্যাল মাইলের মধ্যে ঢুকে পড়ে তাহলে তাইওয়ান সামরিকভাবে এর জবাব দেবে বলে জানিয়েছেন উ। কিন্তু এর বাইরে এ ধরনের কোনো পরিস্থিতিতে জবাব দেওয়ার জন্য সামরিক বাহিনীকে বা কোস্টগার্ডকে বাড়তি কর্তৃত্ব দেওয়ার আশু কোনো পরিকল্পনা নেই। প্রেসিডেন্ট সাই ইং ওয়েন বারবার বলেছেন, তাইওয়ান সংঘাত উস্কে দেবে না, বাড়াবেও না।