ভারতে নারীদের জন্য সবচেয়ে অনিরাপদ শহর হিসেবে দিল্লির নাম উঠে এসেছে। আর নিরাপদ শহর হিসেবে কলকাতার নাম উঠে এলো পর পর দু'বছর। 

ভারতের ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরোর (এনসিআরবি) তথ্যে এমন চিত্র উঠে এসেছে। খবর এনডিটিভির।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজধানী দিল্লিতে গত বছর প্রতিদিন দু'জন করে নাবালিকা ধর্ষণের শিকার হয়েছে। দেশটির মহানগরগুলোর মধ্যে দিল্লিই নারীদের জন্য সবচেয়ে অনিরাপদ। দিল্লিতে ২০২১ সালে নারীদের বিরুদ্ধে অপরাধের ঘটনায় ১৩ হাজার ৮৯২টি মামলা হয়েছে। আগের বছর এ সংখ্যা ছিল ৯ হাজার ৭৮২। এক বছরের ব্যবধানে মামলার সংখ্যা ৪০ শতাংশের বেশি বেড়েছে।

এনসিআরবির তথ্য অনুযায়ী, নারীদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধে ১৯টি মহানগরীতে হওয়া মোট মামলার ৩২ দশমিক ২০ শতাংশই দিল্লিতে নথিবদ্ধ হয়েছে। এসব মহানগরে গত বছর এ ধরনের মোট মামলা হয়েছে ৪৩ হাজার ৪১৪।

নারীদের বিরুদ্ধে অপরাধ সংঘটনে দিল্লির পরই রয়েছে অর্থনৈতিক রাজধানী হিসেবে পরিচিত মুম্বাই। এ ধরনের ৫ হাজার ৫৪৩টি মামলা হয়েছে এ শহরে। তৃতীয় স্থানে থাকা বেঙ্গালুরুতে হয়েছে ৩ হাজার ১২৭টি মামলা। মোট ১৯টি মহানগরীতে হওয়া এ ধরনের মামলার ১২ দশমিক ৭৬ শতাংশ নথিবদ্ধ হয়েছে মুম্বাইয়ে। আর বেঙ্গালুরুতে হয়েছে ৭ দশমিক ২ শতাংশ মামলা।

এদিকে এনসিআরবির রিপোর্ট বলছে, কলকাতার প্রতি লাখ জনসংখ্যার মধ্যে দেশের বাকি শহরের তুলনায় সবচেয়ে কম অপরাধের ঘটনা ঘটেছে। এর ভিত্তিতেই সবচেয়ে নিরাপদ শহরের তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে কলকাতার নাম। কলকাতায় প্রতি লাখ মানুষে নথিভুক্ত অপরাধ ১০৩.৪। এই সংখ্যা গত বছরের তুলনায় আরও কমেছে। গত বছর এই সংখ্যা ছিল ১২৯.৫।