ইরানে হিজাব আইন ভঙ্গের জের ধরে মাহসা আমিনি নামে এক নারীর মৃত্যুর পর ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়েছে দেশটিতে। বিক্ষোভে অংশ নেওয়া নারীরা হিজাব পুড়িয়ে তাঁদের ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। দেশটিতে পাঁচ দিন ধরে বিক্ষোভ চলছে এবং অনেক শহর ও নগরে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়েছে। তেহরানের উত্তরের শহর সারিতে শত শত নারী বিক্ষোভের অংশ হিসেবে হিজাবে আগুন ধরিয়ে দেন। খবর বিবিসির।

ইরানের রাজধানী তেহরানে গত সপ্তাহে মাহসা আমিনিকে হিজাব আইন ভঙ্গের অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছিল ইরানের পুলিশ। আটক কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। তিন দিন কোমায় থাকার পর গত শুক্রবার তাঁর মৃত্যু হয়। এর পর থেকেই ইরানে হিজাববিরোধী ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। বিক্ষোভ চলাকালীন অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাঁদানে গ্যাস ছুড়েছে পুলিশ। সহিংসতায় অন্তত পাঁচজন মারা গেছেন বলে জানা গেছে।

জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার নাদা আল-নাশিফ বলেছেন, অভিযোগ রয়েছে, আটকের পর আমিনির মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে পুলিশ এবং তাদের গাড়িতে মাথা ঠুকে দেয়। তবে তাঁকে নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। তাদের দাবি, আমিনি হৃদযন্ত্র বিকল হয়ে মারা গেছেন। আমিনির পরিবার জানিয়েছে, তিনি পুরোপুরি সুস্থ ও সবল ছিলেন।