রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে রুশ ফেডারেশনের অন্তর্ভুক্ত করার আইনে স্বাক্ষর করেছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়া এই অঞ্চলগুলোকে পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ করে না। এর মধ্যে দুটি অঞ্চলে ইউক্রেনীয় বাহিনী তাদের অগ্রগতি দাবি করেছে। 

ইউক্রেনের সৈন্যরা দেশটির পূর্ব ও দক্ষিণ অংশে পাল্টা আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছে। তারা রুশ কবল থেকে সম্প্রতি কিছু ভূমি উদ্ধার করতে সমর্থ হয়েছে। তবে ক্রেমলিনের সরকার জোর দিয়ে বলেছে, ইউক্রেনীয়রা যে অঞ্চলগুলো পুনরুদ্ধার করেছে সেগুলো রাশিয়া আবার দখলে নেবে।

ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তাদের বাহিনী দিনেপ্রো নদীর পশ্চিম তীর বরাবর দক্ষিণ দিক দিয়ে অগ্রসর হচ্ছে এবং দেশের উত্তর-পূর্বেও তারা তাদের অগ্রগতি সুসংহত করছে বলে জানা গেছে।

যেসব ভূখণ্ড ইউক্রেনীয় সৈন্যরা পুনরুদ্ধার করেছে তার মধ্যে খেরসন অঞ্চলের একটি গুরুত্বপূর্ণ গ্রাম রয়েছে। সেখানে জাতীয় পতাকা তোলা হয়েছে।

ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কিয়েভের দক্ষিণ-পশ্চিমে একটি শহরে রুশ বাহিনী হামলা চালিয়েছে। এই আক্রমণে বিস্ফোরক ভর্তি ‘কামিকাজে ড্রোন’ ব্যবহার করা হয়েছে।

অঞ্চলটির গভর্নর জানান, বিলা সারকভায় এই হামলায় অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া একজন আহত হয়েছেন।

রাশিয়া ইউক্রেনের অন্যান্য অঞ্চলেও আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছে। জাপোরিসা শহর, দনিপ্রোপেট্রোভস্কের কিছু শহর এবং দনেৎস্কর রণাঙ্গণে বাখমুত ও আভদিভকা শহরকে ঘিরে হামলা হয়েছে।