মুক্তিযুদ্ধের চেতনা রক্ষা করতে হলে আওয়ামী লীগকে আবারও রাষ্ট্রক্ষমতায় আসতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ। তিনি বলেন, এ দেশের অস্তিত্ব বাঁচিয়ে রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ক্ষমতায় আসা খুবই দরকার। আমাদের পা ফসকে গেলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিলীন হয়ে যেতে পারে। এ জন্য শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।

আগামী ২৪ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফল করতে সোমবার দুপুরে যশোর জেলা যুবলীগের প্রস্তুতি সভায় তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর জনসভাকে কেন্দ্র করে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা বর্তমানে যশোরে অবস্থান করছেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক। তিনি বলেন, আবারও ষড়যন্ত্র শুরু হয়ে গেছে। বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্র রুখতে যুবলীগের নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। একাত্তরের পরাজিত শক্তির বিরুদ্ধে দুর্বার রাজনৈতিক প্রতিরোধ গড়ে তুলে রাজনৈতিকভাবে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।
প্রস্তুতি সভার সঞ্চালক ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যুবলীগের জনসমুদ্র দেখে ভীত হয়েছে বিএনপি-জামায়াত। তাদের ষড়যন্ত্র ও মিথ্যাচার আমাদের ঘুম থেকে জেগে তুলেছে।
যুবলীগ চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সংগঠনটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুব্রত পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ড. শামীম আল সাইফুল সোহাগ, প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ার হোসেন, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, জেলা যুবলীগের সভাপতি মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু প্রমুখ।
উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সোহেল উদ্দিন, মজিবুর রহমান চৌধুরী নিপন এমপি, রফিকুল ইসলাম, নবী নেওয়াজ, মৃনাল কান্তি জোদ্দার, তৌফিকুর রহমান সুজন, ড. আশিকুর রহমান শান্ত প্রমুখ।
এর আগে যুবলীগের প্রস্তুতি সভা কেন্দ্র করে সকাল থেকে যশোরের বিভিন্ন উপজেলা থেকে মিছিল করে সভাস্থলে যোগ দেন নেতাকর্মীরা। এ সময় স্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে জেলা পরিষদ মিলনায়তন প্রাঙ্গণ।