সুন্দরবনের ভারতীয় অংশে বাঘ গণনা শুরু হযেছে। তবে এবার বাঘ গণনার পাশাপাশি সুন্দরবনের বাঘের ওপর নজরদারি ও মূল্যায়ন করার উদ্যোগ নিয়েছে ন্যাশনাল টাইগার কনজারভেশন অথরিটি। তাই সুন্দর বনে নতুন করে বসানো হচ্ছে ১৪৯৬টি ক্যামেরা। সোমবার থেকে ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু হবে। ক্যামেরা বসানোর কাজ শেষ হবে আগামী ৩৫ দিনের মধ্যে। আর গণনার কাজ শেষ করতে হবে ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে। 

সুন্দরবনের উত্তর ২৪পরগনার বসিরহাট রেঞ্জ, সজনেখালি ওয়াইল্ডলাইফ স্যাংচুয়ারি রেঞ্জ, ন্যাশনাল পার্ক ইস্ট রেঞ্জ ও ন্যাশনাল পার্ক ওয়েস্ট রেঞ্জের বনকর্মীদের সাথে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বন বিভাগের অন্তর্ভুক্ত মাতলা রেঞ্জ, রায়দিঘি রেঞ্জ ও রামগঙ্গা রেঞ্জের বনকর্মীরা অংশ নিয়েছে গণনার কাজে। 

সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের ফিল্ড ডিরেক্টর তাপস দাস বলেন, ভারতের ৫৩ বাঘ সংরক্ষিত জঙ্গলে বাঘ গণনার কাজ শুরু হয়েছে। তারমধ্যে রয়েছে সুন্দরবন। প্রায় দেড় হাজার উন্নত মানের ক্যামেরা বসানো হচ্ছে। এর মধ্যে ৪০০ক্যামেরা এসেছে wwf বা ওয়ার্ল্ড ওয়াইডলাইফ ফান্ডের তরফে। এই বাঘ গণনার কাজে প্রতিটি দলে ১২ থেকে ১৪ জন করে সদস্য থাকবেন। 

ভারতের শেষ ব্যাঘ্রশুমারি অনুযায়ী ভারতের সুন্দরবনের অংশে বাঘের সংখ্যা ছিল ৯৬ টি। এরপর পশ্চিমবঙ্গের বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক দাবি করেন সুন্দরবনের ভারতীয় অংশের নতুন করে ২৭ টি রয়েল বেঙ্গল টাইগারের খোঁজ পাওয়া গেছে। 

সম্পূর্ণ সুন্দরবনের ৬০ শতাংশ বাংলাদেশে; বাকি ৪০ শতাংশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে। সুন্দরবনের বাংলাদেশ অংশের আয়তন প্রায় ৬ হাজার ১৭ বর্গকিলোমিটার। আর ভারতের অংশের আয়তন প্রায় ৪ হাজার বর্গকিলোমিটার। সুন্দরবনের ভারতীয় অংশ ১৯ টি প্রশাসনিক ব্লক নিয়ে গঠিত।