নির্ধারিত সময়ে চিঠির জবাব দিতে ব্যর্থ হওয়ায় নিবন্ধিত ১৪টি রাজনৈতিক দলকে কারণ দর্শাতে বলেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বুধবার দেওয়া চিঠিতে ১৫ দিনের সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর বুধবার সাংবাদিকদের বলেন, ১৪টি দল সময়মতো তথ্য দেয়নি। যারা সময় চেয়েছে, তাদের এক মাস সময় দেওয়া হয়েছে। যারা তথ্য দেয়নি, তারা কেন দেয়নি, তা জানতে চেয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

ইসিতে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল রয়েছে ৩৯টি। দলগুলো নিবন্ধনের শর্ত মেনে চলছে কিনা, তা যাচাইয়ের উদ্যোগ নিয়েছে কমিশন। ২৪ নভেম্বরের মধ্যে তথ্য দিতে বলা হয়েছিল।

ইসি সূত্র জানায়, বিএনপিসহ চারটি দল ইসির কাছে তথ্য দেওয়ার জন্য সময় চেয়েছে। আর আওয়ামী লীগসহ ২১টি দল নির্ধারিত সময়ে তথ্য জমা দিয়েছে। জবাব দিতে ব্যর্থ দলগুলো হলো- কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, বিকল্পধারা বাংলাদেশ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল (এমএল), জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), গণফ্রন্ট, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি ও গণতন্ত্রী পার্টি। এর মধ্যে কল্যাণ পার্টি ও গণতন্ত্রী পার্টি নির্ধারিত সময়ের পর তথ্য দিয়েছে। তাদের নামেও কারণ দর্শানোর চিঠি দেওয়া হয়েছে।

নতুন দলের নিবন্ধনের বিষয়ে মো. আলমগীর বলেন, আইনগত দিকগুলো পরীক্ষা করা হচ্ছে। কাগজপত্র ঠিক থাকলে সেগুলো মাঠ পর্যায়ে ঠিক আছে কিনা, যাচাই করা হবে।