ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

রাতভর অভিযানে দুই জিম্মিকে মুক্ত করার দাবি ইসরায়েলের

দুই জিম্মিকে মুক্ত করার দাবি ইসরায়েলের

রাফাহ শহরে বিমান হামলা

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১১:৩৭ | আপডেট: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১১:৪৬

রাতভর যৌথ অভিযানে দুই জিম্মিকে মুক্ত করার দাবি করেছে ইসরায়েল। ফিলিস্তিনের দক্ষিণ গাজার রাফাহ শহরে অভিযান চালিয়ে দুই ইসরায়েলি জিম্মিকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ)।   

আইডিএফ বলছে, মুক্তিপ্রাপ্ত জিম্মিদের স্বাস্থ্য ভালো রয়েছে। মেডিকেল পরীক্ষার জন্য তাদের হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। খবর-বিবিসি

এক বিবৃতিতে আইডিএফ জানিয়েছে- ইসরায়েল সিকিউরিটি এজেন্সি ও ইসরায়েল পুলিশের সঙ্গে রাতভর যৌথ অভিযানে কিবুতজ নির ইতজাক থেকে দুই জিম্মিকে উদ্ধার করা হয়েছে। তারা হলেন, ফার্নান্দো সাইমন মারমান (৬০) ও লুই হার (৭০)। 

যদিও ইসরায়েলি কর্মকর্তারা এই অভিযানের বিস্তারিত কোনো তথ্য দেননি। তবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োভ গ্যালান্ট এটিকে ‘হৃদয়স্পর্শী’ বলে বর্ণনা করেছেন।

তিনি বলেছেন, আমরা যেকোনো উপায়ে অপহৃতদের ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি পূরণ করব।

গত বছরের ৭ অক্টোবর ভোরে ইসরায়েলে অতর্কিত হামলা চালায় হামাস। হামাসের এই হামলার জবাবে ওই দিনই গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বিমান বাহিনী। ১৬ অক্টোবর থেকে সেই অভিযানে যোগ দেয় স্থল বাহিনীও।  ধারণা করা হচ্ছে, গাজায় বিভিন্ন গোপন জায়গায় তাদের আটকে রাখা হয়েছে। 

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, হামাস এ যাত্রায় অন্তত ১২০ জন ইসরায়েলিকে জিম্মি করেছে। জিম্মিদের নিয়ে বেশ দোটানায় পড়েছে ইসরায়েল সরকার। তাদের উদ্ধারে সশস্ত্র অভিযান আদৌ কার্যকর হবে কিনা, বা তা করা হলে কতটা ঝুঁকিপূর্ণ হবে? নাকি বিমান হামলায় হামাস পিছু হটা বা হামাসের দূর্বল হওয়া পর্যন্ত দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করলেই ভালো হবে। বিমান হামলা দীর্ঘতর হলে হামাস হয়তো চুক্তিতে আসতে বাধ্য হবে। এসব নানা উপায় নিয়ে ভাবছে ইসরায়েল সরকার।

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর গোয়েন্দা কার্যক্রমে ২০ বছরেরও বেশি সময় জড়িত থাকা মিশেল মিলস্টেইন বিবিসির নিরাপত্তা বিষয়ক প্রতিবেদক ফ্রান্ক গার্ডনারকে বলেছেন, ‘এ নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই যে ইসরায়েল জিম্মিদের নিয়ে ইতিহাসের সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছে।’

জাতিসংঘের তথ্য মতে, ইসরায়েলের হামলায় গাজায় এখন পর্যন্ত চার লাখ ২৩ হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন।
 

আরও পড়ুন

×