ঢাকা বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আসন ছাড়ার ঘোষণা দিলেন জামায়াতে ইসলামীর করাচি প্রধান

আসন ছাড়ার ঘোষণা দিলেন জামায়াতে ইসলামীর করাচি প্রধান

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন হাফিজ নাঈম-উর-রহমান। ছবি: দ্যা এক্সপ্রেস ট্রিবিউন

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ২১:১১ | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ০২:০৯

পাকিস্তানের নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলে জয়ী হওয়া সিন্ধু বিধানসভার আসন ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির জামায়াতে ইসলামীর (জেআই) করাচি প্রধান হাফিজ নাঈম-উর-রহমান। তিনি বলেন, ‘পিটিআই প্রার্থী সাইফ বারী আমার চেয়ে ভোট বেশি পেয়েছিলেন। কিন্তু তাকে ১১ হাজার ভোট কমিয়ে আমাকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে।’

এর আগে জেআই প্রার্থী হাফিজ নাঈম-উর-রহমান ২৬ হাজার ২৯৬ ভোট এবং পিটিআই সমর্থিত প্রার্থী সাইফ বারী পান ২০ হাজার ৩৫৭ ভোট পেয়েছেন বলে ফলাফল ঘোষণা করে পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশন (ইসিপি)। খবর আল জাজিরা, দ্যা এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের

আজ সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে পিএস-১২৯ নম্বর আসনটি ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে জেআই নেতা নাঈম বলেন, ‘আমি আসনটিতে ২৬ হাজার ২৯৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হই। পিটিআই সমর্থিত প্রার্থী সাইফ বারী পান ৩১ হাজার ৩৫৭ ভোট। ফল পরিবর্তন করে ইসিপি তাকে ১১ হাজার কমিয়ে দেয়।

তিনি বলেন, জাতির সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে। পিটিআই সমর্থিত প্রার্থী সাইফ বারী ৩১ হাজার ভোট পেলেও ১১ হাজার কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। পিএস-১২৯ নম্বর আসনটিতে তিনিই বিজয়ী হন।

৩০ হাজারের বেশি ভোট পেতেন দাবি করে নাঈম বলেন, ‘আমি ২৬ হাজার ভোট পাই। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে আমার ভোটের সংখ্যা সংশোধন করে ৩০ হাজার করে ইসিপি।’

পিটিআই সমর্থিত প্রার্থী আসনটিতে বিজয়ী হয়েছেন স্বীকার করে জেআই নেতা বলেন, মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট পাকিস্তানকে (এমকিউএম-পি) পিটিআইয়ের ম্যান্ডেট স্বীকার করা উচিৎ। এ সময় এমকিউএম-পির সমালোচনা করে তিনি বলেন, তারা জয় পাবে এমন সম্ভাবনা কখনও ছিল না। এর চেয়ে দুর্বল আসনেও তারা জিততে পারেনি।

এদিকে ইমরান খানের দল পিটিআই এক্সে (সাবেক টুইটার) এক পোস্টে নাঈমের এ ঘোষণার প্রশংসা করে বলেছে, আমরা অন্যান্য প্রার্থীদের কাছ থেকেও এ ধরনের সততা প্রত্যাশা করি।

আরও পড়ুন

×