ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

শিক্ষার্থীর ওপর ক্ষতিকর প্রভাব

সামাজিক মাধ্যমগুলোর বিরুদ্ধে কানাডার স্কুল বোর্ডের মামলা

সামাজিক মাধ্যমগুলোর বিরুদ্ধে কানাডার স্কুল বোর্ডের মামলা

ছবি: রয়টার্স

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৯ মার্চ ২০২৪ | ০৬:১৬ | আপডেট: ২৯ মার্চ ২০২৪ | ১৬:১২

শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় ব্যাঘাত ও আসক্তিতে পরিণত করার অভিযোগে বিশ্বের কয়েকটি বৃহত্তম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা করেছে কানাডার চারটি প্রধান স্কুল বোর্ড। তারা এ ক্ষতির জন্য চার বিলিয়ন কানাডিয়ান ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে। খবর আল-জাজিরার

স্কুল বোর্ডরা বলছে- সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যেনো তা বাধ্যতামূলকভাবে ব্যবহার করে। এমনকি এগুলো এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যেনো বাচ্চাদের চিন্তাভাবনা, আচরণ এবং শেখার পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনা হয়। 

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে বোর্ডগুলি বলেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মেটা প্ল্যাটফর্মের ইনস্টাগ্রাম, ফেইসবুক, স্ন্যাপচ্যাটের বিপক্ষে ‘শিশুদের মানসিক স্বাস্থ্যকে বিপন্ন করার, আসক্তির প্রচার করার ও অনিরাপদ আচরণকে উৎসাহিত করার’ অভিযোগ আনা হয়েছে। 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন পণ্যের বিজ্ঞাপন এবং অতিরিক্ত ব্যবহারের কারণে শিক্ষার্থীরা মনোযোগ, শেখার আগ্রহ হারিয়ে ফেলাসহ মানসিক স্বাস্থ্য সংকটে ভুগছে। 

ক্ষতিকারক অ্যালগরিদম, জুয়ার মতো প্রক্রিয়া ও পারস্পরিক কারসাজির মাধ্যমে এসব অর্জন করা হয় বলেও অভিযোগ আনা হয়েছে। 

এছাড়া বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামের মতো প্ল্যাটফর্মগুলি দীর্ঘ ব্যবহারের ফলে উদ্বেগ এবং বিষণ্নতার ঝুঁকি রয়েছে।

যে চারটি বোর্ড অভিযোগ দায়ের করেছে, তার একটি টরন্টো ডিস্ট্রিক্ট স্কুল বোর্ড। এটি কানাডার সবচেয়ে বড় স্কুল বোর্ড। এর শিক্ষাবিষয়ক পরিচালক কলিন রাসেল রাউলিন্স বলেন, ‘আজকাল কম বয়সী স্কুলশিক্ষার্থীদের মধ্যে যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের প্রভাব পড়ছে, তা অস্বীকার করা যাবে না।’

অপর তিনটি স্কুল বোর্ড হলো- পিল ডিস্ট্রিক্ট স্কুল বোর্ড, টরন্টো ক্যাথলিক ডিস্ট্রিক্ট স্কুল বোর্ড ও অটোয়া-কার্লটন ডিস্ট্রিক্ট স্কুল বোর্ড।

আরও পড়ুন

×