ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

সাদা জিরাফের শেষ বংশধর

সাদা জিরাফের শেষ বংশধর

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৯ নভেম্বর ২০২০ | ২১:২৭

জিরাফ পরিচিত প্রাণী হলেও এর সাদা রঙের জাত থাকার তথ্য হয়তো অনেকেরই অজানা। পৃথিবীতে সাদা রঙের জিরাফ ছিল এবং এখনও আছে। তবে পরিবেশ ধ্বংসকারী শিকারিদের দ্বারা এই জাতটি আজ বিলুপ্তির পথে।

সম্প্রতি এমন একটি জিরাফ পূর্ব আফ্রিকার দেশ কেনিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের গারিসা কাউন্টির বন সংরক্ষণকারীদের নজরে এসেছে যেটির রং পুরোপুরি সাদা। ধারণা করা হচ্ছে, সাদা জিরাফের এটিই শেষ বংশধর। গত মার্চে এর সঙ্গিনী ও সাত মাস বয়সী একটি বাচ্চাকে শিকারিরা হত্যা করেছে। বন্যপ্রাণী উজাড়কারী শিকারিদের হাত থেকে জিরাফটিকে রক্ষায় এর সঙ্গে জিপিএস ট্র্যাকিং ব্যবস্থা সংযুক্ত করা হয়েছে। এতে বিরল এই জাতের শেষ সদস্যটিকে সারাক্ষণ নজরদারির মধ্যে রাখা যাচ্ছে বলে দেশটির বন্যপ্রাণী সংরক্ষণকারীরা জানিয়েছেন। খবর বিবিসির।

গারিসা কাউন্টির একটি সংরক্ষিত বনে বিচরণকারী পুরুষ জিরাফটির শরীরে লিউসিজম নামে বিরল জেনেটিক অবস্থা রয়েছে। যার কারণে এই জাতের জিরাফের গায়ের স্বাভাবিক রং ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং প্রকৃত রং হারিয়ে যায় বলে একটি প্রাণী সংরক্ষণ সংস্থা জানিয়েছে। তাদের আশঙ্কা, এই জিরাফটির ভাগ্যও তার জাতের অন্য দুই সদস্যের মতো হতে পারে। তাই এটিকে সারাক্ষণ নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে।

কেনিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সংরক্ষিত বনগুলোর দেখভাল করে দেশটির ইশাকবিনি হিরোলা সম্প্রদায়। মোহাম্মদ আহমেদ নূর নামে এক ব্যক্তি বিরল এই জাতের সর্বশেষ সদস্যকে সংরক্ষণে সহায়তা করার জন্য বন্যপ্রাণী সংরক্ষণকারীদের ধন্যবাদ জানান।

দ্য কেনিয়া ওয়াইল্ডলাইফ সোসাইটি জানায়, দেশটিতে সাদা জাতের জিরাফ প্রথম নজরে আসে ২০১৬ সালের মার্চ মাসে। পরের বছর সাদা একটি মা জিরাফ ও বাচ্চার বিচরণ বন সংরক্ষণকারীদের ক্যামেরায় ধরা পড়ে। আফ্রিকার প্রায় ১৫টি দেশে এই জিরাফগুলোর বিচরণ ছিল। কিন্তু সবচেয়ে উচ্চতর এই প্রাণীটির ত্বক, মাংস ও অঙ্গপ্রতঙ্গের জন্য ব্যাপকভাবে শিকারে পরিণত হচ্ছে।

আফ্রিকা ওয়াইল্ডলাইফ ফাউন্ডেশনের তথ্য বলছে, বিশ্বের প্রায় ৪০ শতাংশ জিরাফ গত ৩০ বছরের মধ্যে শিকারি এবং অন্য বন্যপ্রাণীদের দ্বারা বিলুপ্ত হয়েছে।

আরও পড়ুন

×