ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

কাবুলে নারী বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে পুলিশের গুলি

কাবুলে নারী বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে পুলিশের গুলি

ছবি: এএফপি

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১০:০৫ | আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১০:০৫

মেয়েদের উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলে যাওয়ার সুযোগ দেওয়ার দাবিতে বৃহস্পতিবার আফগানিস্তানের কাবুলে একদল নারী বিক্ষোভ করেছেন। বিক্ষোভের খবর পেয়ে তালেবান পুলিশ গুলি ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। 

দেশটির হেরাত প্রদেশে জাফরানের মসলা ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত আফগান নারীরা জানিয়েছেন, তালেবানের ভয়ে তারা ঘরবন্দি থাকবেন না। ভয় পেয়ে ঘরে বসে থাকলে তাদের না খেয়ে দিন কাটাতে হবে। 

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন বলেছেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শাসনামলে সম্পাদিত দোহা চুক্তি তালেবানকে শক্তিশালী করেছে। খবর এএফপি ও এনডিটিভির।

সেপ্টেম্বরের শুরুতে উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলে মেয়েদের যাওয়া নিষিদ্ধ করে তালেবান। গোষ্ঠীটি জানায়, মেয়েদের জন্য উপযুক্ত ইসলামী পরিবেশ নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত তারা স্কুলে যেতে পারবে না। এই ঘটনার পর স্কুলে ফেরার দাবিতে বেশ কয়েকবার বিক্ষোভ করেন দেশটির নারীরা। বৃহস্পতিবার পূর্ব কাবুলের একটি স্কুলের বাইরে অন্তত ছয় নারী একত্রিত হয়ে মেয়েদের স্কুল চালু করার দাবিতে বিক্ষোভ করেন। এ সময় তারা 'আমাদের কলমকে ভেঙে দিও না' লেখা প্ল্যাকার্ড বহন করেন। খবর পেয়ে সেখানে তালেবান পুলিশ উপস্থিত হয় এবং গুলি ছুড়ে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। 

এ সময় পুলিশ বিক্ষোভকারীদের প্ল্যাকার্ড কেড়ে নেয় এবং উপস্থিত সাংবাদিকদের ছবি তুলতে বাঁধা দেয়। বিদেশি একজন সাংবাদিক অভিযোগ করেছেন, তাকে রাইফেলের বাঁট দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। 

তালেবানের শাসন শুরু হওয়ার পর থেকেই আফগান নারীদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এদের মধ্যে খেটে খাওয়া নারীদের অবস্থা খুবই শোচনীয়। তাদেরই একজন হেরাতের পাশতন জারঘন জেলার সাফিকে আত্তাই। তিনিসহ আরও এক হাজারেরও বেশি আফগান নারী স্থানীয় একটি জাফরান কারখানায় কাজ করেন। তালেবানের ভয়ে কর্মক্ষেত্রে যাওয়া বন্ধ করেননি তারা। কারণ কাজ না করলে অনাহারে দিন কাটাতে হবে। তাই তালেবানের ভয়ে ঘরবন্দি থাকতে চান না তারা।

এদিকে তালেবান ও ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের মধ্যে সম্পাদিত দোহা চুক্তি তালেবানের শক্তি বাড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ডের প্রধান ফ্রাঙ্ক ম্যাকেঞ্জি। প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন তার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন।

আরও পড়ুন

×