আপন দর্পণ

প্রকাশ: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০       প্রিন্ট সংস্করণ

--

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী [২৩ জুন, ১৯৩৬]

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী [২৩ জুন, ১৯৩৬]

ব্যক্তিগত জীবনে কোনো বিশেষ ঘটনা আপনাকে প্রভাবিত করে?
--দুটি ঘটনা আমাকে ভীষণ প্রভাবিত করে। প্রথমত, আমি যখন যুক্তরাজ্যে পড়তে যাই, তখন দেশে আমার বাবা মারা যান। দ্বিতীয়ত, আমার স্ত্রীর মৃত্যু। এই দুটি ঘটনা নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করে। ইতিবাচকভাবে যা প্রভাবিত করে- রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন।
-কোন বই আপনি বারবার পড়েন?
--রবীন্দ্রনাথের গোরা উপন্যাসটি আমি বারবার পড়ি। অসাধারণ লাগে এ উপন্যাসটি।
ব্যক্তিগত জীবনের কোনো সীমাবদ্ধতা আপনাকে কষ্ট দেয়?
মানুষের জীবনে তো সীমাবদ্ধতা রয়েছেই। বাবা মারা যাওয়ার ফলে অনেক কষ্ট পেয়েছি। আমি ছিলাম বাবার বড় ছেলে। শিক্ষাজীবন শেষ না হতেই বাবার মৃত্যুতে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি। তবে এ কথা এখনও বলি, আমার জীবনে আমার মায়ের প্রভাব সবচেয়ে বেশি। আমার মা মারা গেছেন পাঁচ বছর হলো। এখন বুঝি, আমার জীবনের প্রতিটা অংশ জুড়ে মা রয়ে গেছেন।
-নিজের চরিত্রের শক্তিশালী দিক?
--একটি বিষয় আমাকে কখনও আকৃষ্ট করেনি। সেটি হলো বৈষয়িক লোভ। ফলে আমি অস্থিরতাবশত নানান দিকে ছোটাছুটি করিনি।
-প্রিয়জনের কাছ থেকে বেশি শোনা প্রশংসা বাক্য কোনটি?
--প্রিয়জনদের প্রতি আমার স্নেহ-ভালোবাসা আছে। যদিও আমি উদাসীন- এ রকম অভিযোগ রয়েছে।
-আপনার প্রিয় উদ্ধৃতি কোনটি?
--যদিও আমি খুব সাহসী ব্যক্তি নই। তবে আমার প্রিয় উদ্ধৃতি হলো- কাপুরুষেরা মৃত্যুর আগে বহুবার মারা যায়।

বিষয় : কালের খেয়া