মানুষের ভেতরে সমুদ্র, নদী, পাহাড় আর বনবনানী থাকে
দূর দিগন্ত থাকে, থাকে আবছায়া মতো নানা জলের বুদ্‌বুদ!
হরেক রকম সেসব জলের গোত্তা খাওয়া-
কখনও শান্ত কখনও অশান্ত হয়ে ওঠে।
কিছু মাছ থাকে মানুষের জীবনে
তারা সমুদ্রে, নদীতে সাঁতার কাটে
ডুবসাঁতার, বুকসাঁতার, চিতসাঁতার ...
সাঁতার কেটে তবুও তারা কোথাও যায় না
এক নির্দিষ্ট অক্ষরেখা ধরে, জলের পাঁজরের
এক হাড় থেকে অন্য হাড়ে তারা ঘুরে বেড়ায় ...
হাড়ের শৈবাল খুঁটে খায়, শ্যাওলা খায় ...
রক্ত খায়-
মনের কাঠামো ধরে খেয়ে ফেলে সন্তরণশীল মৎস্যসম্প্রদায়
মানুষের তখন একটি সমুদ্রের, একটি নদীর খুব দরকার হয়
তার কিনারে গিয়ে সে আনমনা, ধ্যানগ্রস্ত বসে
বুকের ভেতরে সে তখন অনেক বড় বড় ঢেউসমেত ভেঙে পড়ে ...
পাহাড় আর বনবনানীর সবুজ স্বাস্থ্যের মুখোমুখি হতে চায় সে তখন
নিজের ভেতরে পাহাড় গান গায়, পাহাড়ের হাওয়া ওঠে
অগণন বৃক্ষেরা মানুষের মধ্যে কথা বলতে থাকে
কথা বলে যেন তার ঘূর্ণাবর্তের সাথে ...

বিষয় : পদাবলি

মন্তব্য করুন