কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে কানাডার ক্যালগেরিতে প্রবাসী বাঙালিদের উদ্যোগে ‘আজ সন্ধ্যায় রবীন্দ্রনাথ’ শিরোনামে সংগীত সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দীর্ঘ দুই বছর পর প্রবাসী বাঙালি পদচারণায় সাইমন ভ্যালী মিলনায়াতন মূহূর্তেই পরিনত হয় একখণ্ড বাংলাদেশে।

অনুষ্ঠানে রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী তীর্থ সাহা ও রিতা কর্মকার সঙ্গীত পরিবেশন করেন। সুরের মূর্ছনায় প্রবাস জীবনে বাংলার রূপ, প্রকৃতি ভালোবাসা ও নির্মল আনন্দের অবগাহনে ভিন্ন এক আমেজে প্রবাসীদের হৃদয়-মন ভরে উঠেছিল। 

লেখক, কলামিস্ট, উন্নয়ন গবেষক ও সমাজতাত্ত্বিক বিশ্লেষক মো. মাহমুদ হাসান বলেন, কবিগুরুর অসাধারণ গান আমাদের জীবনবোধের অনুপ্রেরণা যোগায়। তার সব দার্শনিক চিন্তাসমৃদ্ধ প্রবন্ধ, সমাজ ও রাষ্ট্রনীতিসংলগ্ন গভীর জীবনবাদী চিন্তা আমাদের ভবিষ্যতের অগ্রযাত্রায় সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

সংগঠক সাইফুল ইসলাম রিপন বলেন, বাংলা সাহিত্যের উজ্জ্বল নক্ষত্র রবীন্দ্রনাথ এবং তাঁর বিশাল সাহিত্য কীর্তির জন্য তিনি আমাদের রক্তস্রোতে আজও মিশে আছেন।

সংগীত শিল্পী রীতা কর্মকার বলেন, আমাদের অস্তিত্বে মিশে আছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। গল্পে, উপন্যাসে, কবিতায়, সুরে কোথায় নেই তিনি। তিনি বিশ্বের দরবারে বাঙালিকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতেও শিখিয়েছেন।

অনুষ্ঠানের গ্র্যান্ড স্পন্সর বিশিষ্ট আবাসন ব্যবসায়ী ও কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ইকবাল রহমান বলেন, রবিঠাকুরের জন্মজয়ন্তীর মতো এমন প্রগতিশীল ও সৃজনশীল কাজের সাথে সংযুক্ত হতে পেরে ইকবাল রিয়েল এস্টেট গর্বিত। ভবিষ্যতেও এমন সৃষ্টিশীল যেকোনো কর্মকাণ্ডে ইকবাল রিয়েল এস্টেট কমিউনিটির পাশে থাকবে।

অনুষ্ঠানে যন্ত্র সহযোগিতায় ছিলেন অমিত কুমার মুহুরি, কি বোর্ডে সুমন চক্রবর্তী, তবলায় ছিলেন বাপ্পী দেব রয় এবং পিয়ানোতে দিয়া চক্রবর্তী।

রবীন্দ্রচর্চার মাধ্যমেই বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির সর্বোচ্চ বিকাশের পথ উন্মুক্ত হতে পারে, এমনটাই মনে করছেন এখানে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা।