অস্ট্রেলীয় লেখক ফ্র্যাঙ্ক মুরহাউস ২৬ জুন (রোববার) ভোরে সিডনির একটি হাসপাতালে মারা যান। তাঁর প্রকাশক পেঙ্গুইন র‌্যান্ডম হাউস খবরটি নিশ্চিত করেছে। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর।
অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে খ্যাতিমান এবং বিতর্কিত লেখকদের একজন মুরহাউস। কারণ তিনি তাঁর যৌন আকাঙ্ক্ষার বিষয়ে কোনো রাখঢাক ছাড়াই লিখেছেন। পেঙ্গুইন র‌্যান্ডম হাউসের মেরেডিথ কার্নো সংবাদমাধ্যমকে জানান, তিনি তাঁর সঙ্গে কাজ করতে পেরে সৌভাগ্য বোধ করছেন। তিনি বলেন, 'প্রায় অর্ধশতাব্দী ধরে ফ্র্যাঙ্ক মুরহাউস অস্ট্রেলিয়ার সাহিত্য জগৎকে আলোকিত করে এসেছেন। দ্য আমেরিকানস, বেবি এবং ফোর্টি-সেভেনটিন গ্রন্থের জন্য তিনি সবচেয়ে বেশি আলোচিত। কবি, প্রাবন্ধিক ও ঔপন্যাসিকদের মত প্রকাশের স্বাধীনতা রক্ষায় কাজ করা সংগঠন পিইএন দপ্তর এবং অস্ট্রেলিয়ান সোসাইটি অব অথারস এ কথাসাহিত্যিক দ্বারা ভীষণভাবে প্রভাবিত ছিল।'
তিনি আরও বলেন, 'গ্র্যান্ড ডেস, ডার্ক প্যালেস এবং কোল্ড লাইট-এর মতো চমকপ্রদ উপন্যাস নিয়ে গঠিত দ্য এডিথ ট্রিলজি শুধু পাঠকের জন্য অপরিমেয় আনন্দই এনে দেয়নি, অনেক নারীর কর্মজীবনের পথকেও প্রভাবিত করেছে। ফ্র্যাঙ্কের সঙ্গে কোল্ড লাইটে কাজ করতে পেরে আমি নিজেকে অনেক সৌভাগ্যবান মনে করছি। ফ্র্যাঙ্ক মুরহাউসকে আমি চিরকাল শ্রদ্ধা করার একটি কারণ হলো- নতুন লেখক এবং প্রকাশনায় কাজ করা লোকদের প্রতি তাঁর উদারতা। তিনি অল্পবয়সীদের পাশে বসে তাঁদের কাছ থেকে শিখতে এবং তাঁর অপরিমেয় জ্ঞান ও অবিশ্বাস্য অভিজ্ঞতার ঝুলি ভাগ করতে পছন্দ করতেন। আমরা সবাই তাঁকে খুব মিস করব।'
মুরহাউস ১৯৩৮ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিন ভাইয়ের মধ্যে তিনি ছিলেন সবার ছোট। মুরহাউস ডেইলি টেলিগ্রাফ পত্রিকার তালিকাভুক্ত লেখক ছিলেন। নারীবাদী এ সাহিত্যিক ছিলেন সেন্সরশিপবিরোধী ও যৌন স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। রাজনৈতিকভাবে একটি সিডনিভিত্তিক লিবারটেরিয়ান গ্রুপের সঙ্গে যুক্ত হন। ডানপন্থি রাজনীতির বিরুদ্ধে তিনি আজীবন সক্রিয় ছিলেন।