বর্তমান সংসদের মেয়াদ ফুরিয়ে আসছে। আগামী বছরের শেষে অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তাই দ্রুত ১১টি দেশ পরিদর্শনের আগ্রহ প্রকাশ করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। আগামী ছয় মাসের মধ্যে মন্ত্রণালয়কে এসব দেশ ভ্রমণের আয়োজন করতে বলা হয়েছে কমিটির পক্ষ থেকে।

বৃহস্পতিবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করা হয়। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সূত্রে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বৈঠক সূত্র জানায়, কমিটি প্রথমে সৌদি আরব, বাহরাইন, ইউএই, ওমান, তুরস্ক, ব্রাসেলস, জার্মানি, ইতালি এবং যুক্তরাজ্য পরিদর্শন করার সুপারিশ করেছিল। পরবর্তীতে এর সঙ্গে অস্ট্রিয়া ও সুইডেন অন্তর্ভুক্ত করে আগামী ছয় মাসের মধ্যে এসব দেশ পরিদর্শনের ব্যবস্থা করার সুপারিশ করা হয়।

এসব দেশ ভ্রমণের উদ্দেশ্য, বাংলাদেশ সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড এবং সরকারের অর্জনগুলো তুলে ধরার পাশাপাশি ওই সকল দেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় করা।

বৃহস্পতিবারের বৈঠকে এই সুপারিশের অগ্রগতি সম্পর্কে বলা হয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পশ্চিম এশিয়া, পূর্ব ইউরোপ ও সিআইএস এবং পশ্চিম ইউরোপ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন অনুবিভাগ সংশ্লিষ্ট দেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস সফরগুলো আয়োজনের কার্যক্রম সমন্বয় করছে।

সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানের বাংলাদেশ দূতাবাস অবহিত করেছে, কমিটির সুবিধাজনক সময়ে তাঁরা সফর আয়োজনের জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

এদিকে বৈঠকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, চীনের মধ্যস্থতায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে ইতিবাচক অগ্রগতি হয়েছে। সংখ্যায় যাই-ই হোক না কেন, প্রাথমিকভাবে কিছু হলেও যদি প্রত্যাবাসন করতে পারি সেটা একটি সফলতা হবে। একবার শুরু করলে পারলে ভবিষ্যতে আরও অগ্রগতি হবে।

এর আগে কমিটি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ইস্যুতে একাধিক আশিয়ান দেশ সফর করেছিল। ওই সফরে ওই সব দেশ রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকার পাশাপাশি প্রত্যাবাসনে ভূমিকা রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল বলে সফর শেষে দেশে ফিরে কমিটির সদস্যরা জানিয়েছিলেন।

কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নেন কমিটির সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, ডা. হাবিবে মিল্লাত ও নাহিম রাজ্জাক।