অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্সের ভয়াবহতা থেকে বাঁচতে ফার্মেসিতে এটির খুচরা বিক্রি বন্ধের পক্ষে মত দিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম।

তিনি বলেন, কেউ অ্যান্টিবায়োটিক কিনলে ফুল ডোজ কিনতে হবে, না হয় কিনবে না- এমন নিয়ম করা প্রয়োজন।

রোববার দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে ইউএসএইড ও বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরাম আয়োজিত 'অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স সমস্যা, প্রতিরোধ গড় সবাই মিলে' শীর্ষক সেমিনারে এসব কথা বলেন অধিদপ্তরের ডিজি।

তিনি বলেন, 'জ্বর হলেই সাধারণ ওষুধের সঙ্গে ফার্মেসি থেকে ব্যবস্থাপত্র ছাড়াই অ্যান্টিবায়োটিক ২-৩ পিস কিনে খাওয়া হচ্ছে। এতে রোগীদের একদিকে খরচ বাড়ছে, অন্যদিকে ক্ষতি হচ্ছে।' তিনি আরও বলেন, 'আমাদের সেবাপ্রত্যাশী লোকজন বেশি। বিপরীতে সুযোগ-সুবিধা কম। প্রতিদিন অপারেশন থিয়েটারগুলো থেকে জীবাণুর সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। অপারেশন থিয়েটার পরিচালনার নিয়মকানুন মানছি না। ওয়ার্ড বয়, সিস্টার, লোকজন, রোগী এমনকি চিকিৎসকরাও মানছেন না। এ বিষয়ে নজর দেওয়া দরকার।'

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি রাশেদ রাব্বির সঞ্চালনায় সেমিনারে বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক ডিজি ও সোসাইটি অব মাইক্রোবায়োলজির সভাপতি ডা. সানিয়া তাহমিনা।