শৈলকুপায় কলার হাটে আগুন!

প্রকাশ: ১৪ মে ২০১৯     আপডেট: ১৪ মে ২০১৯      

শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি

শৈলকুপার পাইকারী কলার হাট- সমকাল

রমজানের শুরুতে তেমন কোনো মৌসুমী ফল না থাকায় ঝিনাইদহের শৈলকুপার বিভিন্ন পাইকারী হাটে। এবার প্রতি কাঁধি কলা ৪শ' থেকে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। কলার এমন দামে খুশি চাষিরা তবে পাইকার ও ফরিয়াদের কথা- তারা হাট থেকে যেমন দামে কলা কিনবেন রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন আড়তে তেমন দামেই বিক্রি করবেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার শৈলকুপায় ১২ শ' ৪০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের কলার চাষ হয়েছে। এখানে সারাবছর কলার চাষ হওয়ায় রাজধানী ঢাকাসহ বরিশাল, ফরিদপুর, সাতক্ষিরা, শরিয়তপুর, মাদারিপুরসহ বিভিন্ন জেলার কলার পাইকার ব্যাবসায়ীরা সপ্তাহে দুদিন শনিবার ও মঙ্গলবার উপজেলা শহরের কলার প্রধান পাইকারী বাজারে এসে কলা কিনে নিয়ে যান। তবে রমজানে চড়া দামে কলা কিনতে এসে পাইকাররা অনেকেই হতাশা প্রকাশ করেন।

বাজারের আড়তদার আলিম হোসেন জানান, প্রতি সপ্তাহে শনি ও মঙ্গলবার কলার হাট বসে। প্রতি হাটে পাইকাররা ১৩ থেকে ১৪ ট্রাক কলা কিনে নিজ নিজ জেলায় নিয়ে যান। তবে এবার কলার দাম স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক বশি।

তিনি বলেন, রমজানের শুরুতে কোন মৌসুমী ফল বাজারে না আসায় ইফতার ও সেহেরীতে কলার চাহিদা বেশি। এবার ২৫ হালির এক কাঁধি কলা সাড়ে ৩শ' থেকে ৪শ' টাকা ও ৪০ হালির এক কাঁধ কলা ৭শ' থেকে ৮শ' টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কলা চাষী আয়েন হোসেন জানান, প্রতি বিঘা জমিতে সাড়ে ৩শ' কলার গাছ রোপন করা যায়। খরচ হয় ১৮ থেকে ২০ হাজার টাকা। এবার প্রতি ১শ' কাঁধি কলা ৩৫ থেকে ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কলার এমন দাম পেয়ে তিনি খুশি বলেই জানান।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার কুন্ডু সমকালকে বলেন, শৈলকুপায় সারাবছর কলা পাওয়া যায়। ১২শ' হেক্টরের বেশি জমিতে এবার কলা রচাষ হয়েছে। রমজানের শুরুতে আম, কাঁঠালসহ বিভিন্ন মৌসুমী ফল বাজারে না আসায় কলা অনেক বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। এতে কলা চাষিরা বেশ খুশি। তবে মৌসুমী ফল বাজারে এলে কলার দাম কমে যাবে।

বিষয় : শৈলকুপা কলা হাট