হাসপাতাল থেকে পালালো কিশোরবন্দি

প্রকাশ: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০   

যশোর অফিস

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গিয়ে যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের (বালক) এক কিশোরবন্দি পালিয়েছে। রাজু বিশ্বাস (১৬) নামে ওই বন্দিকে চিকিৎসার জন্য 

সোমবার দুপুরে যশোর জেনারেল হাসপাতালের বহির্বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। সেখানে চিকিৎসা শেষে ওষুধ কেনার সময় সে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় জিডি হয়েছে।

কেন্দ্রের মেডিকেল সহকারী নজির আহমেদ বলেন, রাজু বিশ্বাসকে বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় আনসার সদস্য অসিত কুমারও তাদের সাথে ছিলেন। ঘন্টাখানেক পর হাসপাতালের বহির্বিভাগের চিকিৎসক ডা. সোলায়মান কবীরকে দেখিয়ে ব্যবস্থাপত্র নিয়ে তিনি ওষুধ কিনতে ফার্মেসিতে যান। রাজুকে কেন্দ্রের মাইক্রোবাসের ভেতরে বসিয়ে বাইরে থেকে লক করে রাখা হয়। কিন্তু ওষুধ নিয়ে ফিরে এসে দেখা যায় সে গাড়িতে নেই। ভেতর থেকে লক খুলে পালিয়ে গেছে।

হাসপাতালের কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার পর রাজুকে গাড়িতে উঠানো হয়। কিন্তু তাকে নিয়ে আসা আনসার সদস্য অসিত বিশ্বাস চা পান করে গাড়ির কিছু দুরে দাঁড়িয়ে ধুমপান করছিলেন। এই সুযোগে আসামি রাজু গাড়ির গেট খুলে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে তার পিছু নেয়া হলেও আটকাতে পারেননি।

পলাতক রাজু ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী উপজেলার দেবকিনন্দপুর গ্রামের আব্দুল ওহাব বিশ্বাসের ছেলে।

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের (বালক) সহকারী পরিচালক ও তত্ত্বাবধায়ক জাকির হোসেন বলেন, পেঁয়াজ চুরির একটি মামলায় গত ১১ সেপ্টেম্বর ফরিদপুর থেকে ওই কিশোরকে যশোর কেন্দ্রে পাঠানো হয়। তার বুকে ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। সেকারণে সোমবার সকালে কেন্দ্রের কর্মীদের সঙ্গে তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় কোতয়ালি থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এছাড়া কেন্দ্রের কর্মীরা বাসস্ট্যান্ড, টার্মিনাল, রেলস্টেশনসহ বিভিন্ন স্থানে তাকে খুঁজছে।

জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উপপরিচালক অসিত কুমার সাহা জানিয়েছেন, আমরা পুলিশকে অবহিত করেছি।