ভিকারুননিসার সেই দুই শিক্ষিকার জামিন

প্রকাশ: ১৬ জুন ২০১৯      

আদালত প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার মামলায় আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন দুই শিক্ষিকা।

রোববার ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালতে প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস ও শাখাপ্রধান জিনাত আক্তার আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত জামিন মঞ্জুর করেন।

সংশ্নিষ্ট আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সাবিনা আক্তার দিপা জানান, এ মামলায় দুই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে। এরপর মামলাটি আদালতে বদলি হয়ে আসে। বদলি হয়ে আসার পর রোববার ছিল প্রথম ধার্য তারিখ। এদিন আসামিরা আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে জামিনের বিরোধিতা করা হয়। শুনানি শেষে আদালত তাদের জামিনের আদেশ দেন। আদালত আগামী ১০ জুলাই চার্জ শুনানির তারিখ ধার্য করেছেন বলে জানান তিনি।

গত ২০ মার্চ নাজনীন ফেরদৌস ও জিনাত আক্তারকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক কামরুল হাসান তালুকদার। আসামিদের নির্দয় ব্যবহার ও অশিক্ষকসুলভ আচরণে অরিত্রী অধিকারী আত্মহত্যায় প্ররোচিত হয় বলে চার্জশিটে উল্লেখ করেন তদন্ত কর্মকর্তা। আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৩০৫ ধারায় চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে।

অরিত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় রাজধানীর পল্টন থানায় তার বাবা দিলীপ অধিকারী বাদী হয়ে গত বছর ৪ ডিসেম্বর রাতে দণ্ডবিধির ৩০৫ ধারায় মামলা করেন। পরে গত ১৪ জানুয়ারি ঢাকা সিএমএম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন তারা।

২০১৮ সালে ৩ ডিসেম্বর রাজধানীর শান্তিনগরের নিজ বাসায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারী।