বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি: ময়ূর-২ লঞ্চের দুই চালক রিমান্ডে

প্রকাশ: ১৫ জুলাই ২০২০     আপডেট: ১৫ জুলাই ২০২০   

আদালত প্রতিবেদক

বুড়িগঙ্গা নদীতে ‘এমভি ময়ূর-২’ লঞ্চের ধাক্কায় প্রাণহানির ঘটনায় করা মামলায় ঘাতক লঞ্চের দুই ইঞ্জিনচালককে চারদিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। 

চালকেরা হলেন- শিপন হাওলাদার ও শাকিল হাওলাদার। 

বুধবার তাদের আদালতে হাজির করে নৌ-পুলিশ। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাদের সাতদিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদরঘাট নৌ থানার উপ-পরিদর্শক শহিদুল আলম। শুনানি শেষে ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফাইরুজ তাসনীম চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে, সকালে রাজধানীর সূত্রাপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে নৌ-পুলিশ। 

উল্লেখ্য, গত ২৯ জুন সকাল ৯টার দিকে মুন্সিগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা দোতলা মর্নিং বার্ড লঞ্চটি সদরঘাট কাঠপট্টি ঘাটে ভেড়ানোর আগ মুহূর্তে চাঁদপুরগামী ময়ুর-২ লঞ্চটি ধাক্কা দেয়। এতে সঙ্গে সঙ্গে মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়। লঞ্চডুবির ঘটনায় ৩৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। 

এ ঘটনার পরদিন সদরঘাট নদী থানার উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ শামসুল বাদী হয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

ময়ূর-২ লঞ্চের মালিক মোসাদ্দেক হানিফ সোয়াদ, মাস্টার আবুল বাশার, মাস্টার জাকির হোসেন, স্টাফ শিপন হাওলাদার, শাকিল হোসেন, হৃদয় ও সুকানি নাসির মৃধার নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় আরও পাঁচ থেকে ছয়জনকে সেখানে আসামি করা হয়।