টিভি চ্যানেলের মালিক-সম্পাদক পরিচয়ে প্রতারণা

প্রকাশ: ০১ সেপ্টেম্বর ২০২০     আপডেট: ০১ সেপ্টেম্বর ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

শহিদুল ইসলাম ও আমেনা খাতুন

শহিদুল ইসলাম ও আমেনা খাতুন

কথিত টেলিভিশন ও সাপ্তাহিক পত্রিকার মালিক-সম্পাদক পরিচয় দিয়ে চাকরি দেওয়ার নামে কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার র‌্যাব-৩ এর একটি দল রাজধানীর পল্টনের হাবিব টাওয়ারে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার দুইজন হলেন- শহিদুল ইসলাম ও আমেনা খাতুন। র‌্যাব জানায়, শহিদুল নিজেকে টিভি চ্যানেল 'নিউজ টুয়েন্টিওয়ান'-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে পরিচয় দিতেন। আমেনা নিজের পরিচয় দিতেন 'সময়ের অপরাধ চক্র' নামের সাপ্তাহিক পত্রিকার সম্পাদক হিসেবে। প্রতিষ্ঠান দুটির নামে হাবিব টাওয়ারে অফিস খুলে বসেছিলেন তারা।

র‌্যাব জানায়, ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর গোয়েন্দা তৎপরতা চালিয়ে ওই দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা নিজেদের সংবাদ মাধ্যমের মালিক-কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে চাকরি দেওয়ার নাম করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। পাশাপাশি কথিত ওই দুটি গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে জেলা ও থানা প্রতিনিধি হিসেবে চাকরি দেওয়ার নামে দেশের বিভিন্ন জেলার মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। গ্রেপ্তার দুইজনের অফিসে তল্লাশি চালিয়ে বিভিন্ন নামে উপ-সচিব, যুগ্ম-সচিবসহ সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের জাল সীল, ৮২টি জাল পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ, চাকরির ভুয়া বিজ্ঞাপন এবং বিভিন্ন ভুয়া নথি উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-৩ এর সহকারী পরিচালক ফারজানা হক জানান, শহিদুল ও আমেনা কখনও টিভি চ্যানেলের মালিক, কখনও সম্পাদক পরিচয় দিয়ে আনসার, তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়, মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, পুলিশসহ ১০টি সরকারি এবং বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রতারণা করে আসছিলেন তারা।

তিনি বলেন, তারা চাকরি দেওয়ার নামে এ পর্যন্ত হাজার খানেক মানুষের কাছ থেকে অন্তত আড়াই কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এ ছাড়া কথিত ওই টিভি চ্যানেল ও সাপ্তাহিক পত্রিকায় প্রতিনিধি নিয়োগের কথা বলে ৫৭০ জনের কাছ থেকে বিভিন্ন অংকের টাকা নিয়েছেন।