কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কোরআন অবমাননা মামলায় অভিযুক্ত ইকবাল হোসেনসহ চার আসামির রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। সাত দিনের রিমান্ড শেষে শুক্রবার দুপুর দুইটার পর তাদের আদালতে হাজির করে আবারও ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালত তাদের পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন। সমকালকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি কুমিল্লার পুলিশ সুপার খান মোহাম্মদ রেজওয়ান।  

তিনি জানান, রিমান্ডে ইকবাল, ৯৯৯ এ ফোন করা ইকরাম, মাজারের সহকারী খাদেম ফয়সাল ও হুমায়ুনের কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ অনেক তথ্য পাওয়া গেছে।  নানুয়ারদীঘির পাড় থেকে সহিংসতা কার কার ইন্ধনে নগরীতে ছড়িয়ে পড়ে এবং কারা সরাসরি সহিংসতায় অংশ নেয়- এসব বিষয়ে পাওয়া তথ্য যাচাই করতে তাদের সাত দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয় আদালতে। পরে আদালত তাদের পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন। 

প্রসঙ্গত, গত ১৩ অক্টোবর নগরীর নানুয়া দীঘির পাড়ে একটি মণ্ডপে কোরআন শরীফ রাখেন ইকবাল হোসেন। ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে সেখানে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা হয় যা ছড়িয়ে পড়ে দেশের আরও কিছু স্থানে। এর পরদিন কুমিল্লা পালিয়ে যান কক্সবাজারে। গত ২১ অক্টোবর তাকে কক্সবাজারে গ্রেপ্তারের পরদিন কুমিল্লায় আনা হয়। ২৩ অক্টোবর তাকেসহ ৪ জনকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড নেওয়া হয়।