বিএনপি ক্ষমতায় গেলে খালেদা জিয়াই প্রধানমন্ত্রী হবেন বলে জানিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে খন্দকার মোশাররফ বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তিনি আর প্রধানমন্ত্রী হতে চান না। আওয়ামী লীগ এবার ক্ষমতায় আসতে পারবে না। যদি ১০ বছর পর তারা ক্ষমতায় আসে তাহলে তাদের প্রধানমন্ত্রী কে হবে তা স্পষ্ট করুন। সব ধরনের কু-বুদ্ধি আওয়ামী লীগ ব্যবহার করছে। এই দেশে আর কোনো কু-বুদ্ধি কাজে দেবেন না।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে গণতন্ত্র ফোরামের উদ্যোগে 'চলমান সংকট নিরসনে নিরপেক্ষ নির্বাচনের গুরুত্ব' শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী জাতীয় নির্বাচনের বিষয়ে দলের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করে খন্দকার মোশাররফ বলেন, শেখ হাসিনার অধীনে বিএনপি কোনো নির্বাচনে যাবে না। শুধু বিএনপি নয়, সারা বাংলাদেশের মানুষ বলেছে- দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল বলছে যাবে না। এটা পরিষ্কার। তার মানে আমরা বসেও থাকবো না।

তিনি আরও বলেন, এই সরকারকে হটাবো। হটানোর জন্য রাজপথই একমাত্র বিকল্প। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বলেছেন, ফয়সালা হবে রাজপথে। এর মধ্যে কোথাও কোনো লুকোচুরি নাই। সরকার পরিবর্তন 'রাস্তায় ফয়সালা' হলে দেশের শ্রীলঙ্কার মতো কোনো অবস্থার সৃষ্টি হলে দায়-দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

ড. মোশাররফ বলেন, যদি এখন আপনারা ক্ষমতা ছেড়ে না দেন, এদেশের মানুষের কাছে ক্ষমা না চান, সংসদ বাতিল না করেন তাহলে দেশের জনগণকে রাস্তায় নেমে আসতে হবে। এ দেশের জনগণ অতীতে প্রমাণ করেছে, আগামীতেও পারবে।

সংগঠনের সভাপতি ভিপি ইব্রাহিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য জয়নুল আবদিন ফারুক, কেন্দ্রীয় নেতা আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, বিলকিস ইসলাম, কৃষক দলের সভাপতি হাসান জাফির তুহিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।