গ্রাহকের অর্থ আত্মসাৎ ও পাচারের দায়ে ডেসটিনির সাজাপ্রাপ্ত ভাইস প্রেসিডেন্ট মেজর (অব.) সাকিবুজ্জামান খানসহ চারজনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বুধবার ঢাকার চার নম্বর বিশেষ জজ আদালতে তাঁরা আত্মসমর্পণ করলে বিচারক নাজমুল আলম জামিন আবেদন নাকচ করে এ আদেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো অন্য তিন আসামি হলেন ডেসটিনি গ্রুপের প্রতিষ্ঠান বেস্ট এভিয়েশনের সহকারী ব্যবস্থাপক মোল্লা আল আমিন, হেড অব ফাইন্যান্স কাজী মোহাম্মদ ফজলুর করিম ও সুনীল বরণ কর্মকার।

গত ১২ মে ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেডের চার হাজার ১১৯ কোটি ২৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের দায়ে ডেসটিনি গ্রুপের এমডি রফিকুল আমীনসহ ৪৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেন আদালত। পাশাপাশি আসামিদের ২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়।

রায়ে সাকিবুজ্জামান খানকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও ১ কোটি টাকা জরিমানা, মোল্লা আল আমিনের চার বছর কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা, কাজী মোহাম্মদ ফজলুর করিমের পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ লাখ টাকা জরিমানা এবং সুনীল বরণ কর্মকারকে আট বছর কারাদণ্ড ও ৫ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়।

এ মামলায় গত ১২ জুন রফিকুল আমীনের স্ত্রী ফারাহ দীবা আত্মসমর্পণ করলে তাকেও কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।