কিডনিতে পাথর জমার উপসর্গ ও করণীয়

প্রকাশ: ২৩ অক্টোবর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

কিডনির সমস্যায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। বিশেষ করে কিডনিতে পাথর জমা সমস্যার কথা এখন প্রায়ই শোনা যায়। সময় মতো ব্যবস্থা না নিলে এ সমস্যা প্রাণঘাতী হয়ে উঠতে পারে।

কিডনিতে পাথর জমার প্রাথমিক লক্ষণগুলি নির্ভর করে পাথর কিডনির ঠিক কোথায় এবং কী ভাবে রয়েছে তার উপর। পাথরের আকার খুব ছোট হলে সেটি কোনও ধরনের ব্যথা ছাড়াই দীর্ঘদিন পর্যন্ত শরীরে থাকতে পারে। তবে পাথরের আকার বড় হলে সেটা বিপদের কারণ হতে পারে। কিডনিতে পাথর হলে সাধারণত যেসব উপসর্গ দেখা যায়-

১. প্রসাবের রঙ রক্ত লাল হয়।

২. দিনের বেশির ভাগ সময় বমি বমি ভাব দেখা দেয়। অনেক সময় বমিও হতে পারে।

৩. কোমরের পিছন দিকে চিনচিনে ব্যথা দেখা দেয়। এ ব্যথা তীব্র হলেও সাধারণত খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হয় না। ব্যথা কোমরের পিছন দিক থেকে তলপেটেও ছড়িয়ে পড়তে পারে।

যেসব কারণে কিডনিতে পাথর জমে-

কিডনিতে পাথর জমার বা তৈরি হওয়ার নির্দিষ্ট কোনো কারণ এখনও জানা যায়নি। তবে কিছু কিছু বিষয় কিডনিতে পাথর তৈরির কারণ হিসেবে বিবেচিত হয়। যেমন-

১. বারবার কিডনিতে সংক্রমণ হওয়া এবং এজন্য যথাযথ চিকিৎসা না নেওয়া। 

২. শরীরে শানিশূন্যতা দেখা দেওয়া। 

৩. শরীরে ক্যালসিয়ামের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া।

৪. অতিরিক্ত পরিমাণে পনির, দুধ বা দুগ্ধজাত খাবার খাওয়ার অভ্যাস থাকা।

কিডনিতে পাথর জমা প্রতিরোধে যা করা জরুরি-

১. কিডনিতে পাথর জমা এড়াতে হলে অবশ্যই প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে।

২. কখনও প্রসাব আটকে বা চেপে রাখবেন না।

৩. প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খেতে হবে।

৪. দুধ, পনির বা দুগ্ধজাত খাবার অতিরিক্ত পরিমাণে না খাওয়াই ভালো।

৫. বারবার ইউরিন ইনফেকশন দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। সূত্র : জি নিউজ