অ্যান্টি এজিং ফেসিয়াল মাস্ক বানাবেন যেভাবে

প্রকাশ: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯   

অনলাইন ডেস্ক

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে চোখের নিচে বলিরেখা পড়া, চুল পেকে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক। অনেকের আবার বয়সের আগেই এ ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। পার্লারে গিয়ে নিয়মিত রূপচর্চার মাধ্যমে অনেকেই ত্বক বা চেহারায় বয়সের ছাপ লুকানোর চেষ্টা করেন। তবে এতে খরচও কিন্তু কম হয় না। সেক্ষেত্রে ঘরে বসেই অ্যান্টি এজিং ভেষজ ফেসিয়াল মাস্ক তৈরি করতে পারেন। ত্বকের ধরন বুঝে এসব মাস্ক ব্যবহার করা উচিত। তাহলে দ্রুতই উপকার পাবেন। যেমন-

শুষ্ক ত্বকের জন্য ডিম ও মধুর ফেসমাস্ক : এজন্য ১টি ডিমের কুসুম, ১ চামচ দই, ১ চামচ মধু আর আধা চামচ আমন্ড অয়েল নিন। একটি বড় পাত্রে সবকটি উপাদান একসঙ্গে নিয়ে ভালো করে নাড়তে থাকুন। মিশ্রণটি গাঢ় এবং আঠালো হলে মুখে লাগিয়ে অন্তত ১০ মিনিট রেখে ভালো করে মুখটা ধুয়ে ফেলুন। 

স্বাভাবিক ত্বকের যত্নে অ্যাভোকাডো ও মধুর ফেসমাস্ক: ২ চামচ মধু, ২ চামচ অ্যাভোকাডো, ১টা ডিমের কুসুম একসঙ্গে নিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন বা ভালো করে চটকে মেখে নিন। এবার মুখ পরিষ্কার করে এ পেস্টটি মেখে অন্তত ২০ মিনিট রাখুন। এরপর মুখটা ধুয়ে ফেলুন। এ ফেসিয়াল সাধারণ ত্বকে অ্যান্টি-এজিংয়ের কাজ করবে। সেই সঙ্গে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াবে। 

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য মধু ও গাজরের ফেসমাস্ক : অর্ধেক গাজর আর আধা চামচ মধু নিন। এবার গাজর ভালো করে সিদ্ধ করে, চটকে পেস্ট বানিয়ে নিন। এখন এতে মধু মিশিয়ে দশ মিনিট ফ্রিজে রেখে দিন। এর পর মুখ ধুয়ে এ পেস্টটি লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। 

সব ধরনের ত্বকের জন্য মধু ও ল্যাভেন্ডার ফেসমাস্ক : ১ চামচ মধু, ৩ ফোঁটা ল্যাভেন্ডার এসেন্সিয়াল অয়েল মিশিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরি করুন। এটি লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর মুখটা ধুয়ে ফেলুন। অ্যান্টি-এজিং ফেসিয়াল মাস্ক হিসেবে এ মাস্কটি সব ধরনের ত্বকের ক্ষেত্রেই খুব উপকারী। সূত্র: জি নিউজ