বাড়তি ওজনে যত স্বাস্থ্যঝুঁকি

প্রকাশ: ১৮ জানুয়ারি ২০২০      

ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ

প্রতীকী ছবি

স্থূলতা বা অতিরিক্ত ওজন স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, রক্তে চর্বির আধিক্য, হৃদরোগ ইত্যাদি সমস্যার কারণ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে এ বাড়তি ওজন।

শরীরের ওজন যদি উচ্চতার মাত্রা ছাড়িয়ে যায়, মানুষের সৌন্দর্য থাকে না। এতে শারীরিক, মানসিক রোগসহ দৈনন্দিন কাজেও নানা ব্যাঘাত ঘটে। অল্প পরিশ্রমে ক্লান্তি আসে, সক্ষমতাও কমে যায়। কোনো কাজ সহজভাবে করা কঠিন হয়ে পড়ে।

অস্থিসন্ধি আমাদের শরীরের ওজন বহন করে। দীর্ঘদিন অতিরিক্ত ওজন বহন করার জন্য অস্থিসন্ধিতে পরিবর্তন দেখা দেয়। ফলে মেরুদণ্ড, কোমর ও হাঁটুতে ব্যথা বা প্রদাহ হতে পারে। অতিরিক্ত ওজনের ফলে রক্তে ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ বেড়ে যায়। তখন অস্টিওআর্থ্রাইটিস বা গেঁটে বাতের ঝুঁকি বাড়ে।

যকৃতের একটি জটিল সমস্যা হলো ফ্যাটি লিভার বা যকৃতে চর্বি জমে যাওয়া। এ থেকে যকৃতের নানা সমস্যা, এমনকি লিভার সিরোসিস পর্যন্ত হতে পারে। স্থূলকায় মানুষের পিত্তথলিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

বিশেষ করে ৪০ বছরের বেশি বয়সী নারীদের স্থূলতার সঙ্গে ইদানীং নানা ধরনের ক্যান্সারের সম্পৃক্ততাও মিলেছে। খাদ্যনালি, অন্ত্র, যকৃৎ ও স্তন ক্যান্সার এবং লসিকা গ্রন্থির ক্যান্সারের সঙ্গেও স্থূলতার সম্পর্ক আছে। স্থূলতার কারণে নাকডাকা, ঘুমের মধ্যে শ্বাস বন্ধ হওয়া ও হৃদরোগ হতে পারে। এ ছাড়া বন্ধ্যাত্ব, হার্নিয়ার ঝুঁকি, মানসিক সমস্যা, ত্বকের সমস্যা, ডায়াবেটিস এবং রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায়।

তাই এসব রোগ থেকে মুক্ত থাকতে বাড়তি ওজন ঝেড়ে ফেলতে হবে। নিয়মিত হাঁটাচলার পাশাপাশি নিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাস মেনে চলতে হবে। তাহলে আপনি এসব সমস্যা থেকে রেহাই পেতে পারেন।


লেখক: সাবেক ডিন, মেডিসিন অনুষদ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়