অনেকেরই ধূলা-বালি কিংবা ঠান্ডায় অ্যালার্জির সমস্যা বাড়ে। কারও আবার শীতের শুরু থেকে ঠান্ডা-সর্দি, কাশি সমস্যা বেড়ে যায়। ওষুধ খাওয়া ছাড়াও এ ধরনের সমস্যা ঘরোয়া উপায়ে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করতে পারেন। যেমন-

১. শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এ সময় নিয়মিত প্রবায়োটিক খেতে পারেন। টক দই, পনিরের মতো প্রয়োবায়োটিক খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। সেই সঙ্গে প্রদাহ ও অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া রোধ করা যায়। 

২. এ সময় নিয়মিত মধু খেতে পারেন। এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট অ্যালার্জি প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে।

৩. অনেকেই রান্নাঘরের নানা কাজে অ্যাপেল সিডার ভিনেগার ব্যবহার করেন। বেসিনের সিঙ্ক পরিষ্কার, খাবারের স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি অ্যালার্জি প্রতিরোধেও অ্যাপেল সিডার ভিনেগার বেশ উপকারী। এক গ্লাস পানির সঙ্গে এক চামচ পরিমাণে অ্যাপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে খেলে কফের পরিমাণ কমে যাবে।

৪. নিয়মিত নাকের স্প্রে ব্যবহার করলে অ্যালার্জি থেকে প্রতিকার পাওয়া যায়। 

৫. অ্যালার্জি নিয়ন্ত্রণে খাদ্যাভাসেরও পরিবর্তন করা আবশ্যক। অন্যান্য খাবারের চেয়ে শাকসবজি ও ফলমূল খেলে শরীর বেশি পুষ্টি পায়। নিয়মিত খাদ্য তালিকায় ভিটামিন সি এবং ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার যোগ করলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।   সূত্র : হেলদিবিল্ডার্জড