আখরোট কেন খাবেন

প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

সুস্থ থাকতে প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় বাদাম রাখার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। কাজু, পেস্তা, চীনা বা আখরোট সব বাদামই স্বাস্থ্যের জন্য দারুণ উপকারী। অন্য বাদামের মতোই আখরোটেরও প্রচুর স্বাস্থ্যগুণ রয়েছে। শরীরের নানা ধরনের সমস্যা দূর করতে এ বাদামের তুলনা নেই। নিয়মিত আখরোট খেলে যেসব স্বাস্থ্য উপকারিতা পাওয়া যায়-

স্মৃতিশক্তি বাড়ায় :  স্মৃতিশক্তি বাড়াতে আখরোট বেশ কার্যকরী। এতে থাকা ওমেগা থ্রি অবসাদ কাটাতে সাহায্য করে। মস্তিষ্কের কোষের সজীবতা বজায় রাখতে আখরোট বেশ উপকারী।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে: আখরোটে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে থাকায় এটি ত্বক সুস্থ রাখতে ভূমিকা রাখে। নিয়মিত আখরোট খেলে ত্বকের বলিরেখা কমে। সেই সঙ্গে বয়সের ছাপও দূর হয়।

ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করে : যারা নিয়মিত আখরোট খান তাদের টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় অনেকটাই কম হয়।

চুল স্বাস্থ্য ভালো রাখে : আখরোটে থাকা বায়োটিন চুল সোজা করতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে চুল পড়া কমায় এবং চুলের বৃদ্ধি বাড়িয়ে তোলে।

শরীরের জন্য উপকারী : শরীরের জন্য অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট খুবই জরুরি। শরীরে থাকা ফ্রি র‍্যাডিক্যালস হৃৎপিন্ডের উপর চাপ ফেলে। আখরোটে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস থাকায় এটি শরীরের জন্য খুবই উপকারী।

পেট পরিষ্কার করে : পেট পরিষ্কার রাখতে শরীরে ফাইবার থাকা অত্যন্ত জরুরি। সাধারণত যেসব খাবার থেকে শরীরে প্রোটিন আসে, সেগুলিতে ফাইবারের পরিমাণ অত্যন্ত কম। আখরোটে থাকা ফাইবার হজমক্ষমতা বজায় রাখতে সাহায্য করে।

মানসিক চাপ কমায় : আখরোটে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি থাকায় এটা ত্বকের বুড়িয়ে যাওয়া রোধ করে। এছাড়াও ভিটামিন বি মুড ভালো রাখতে ও মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে।

শিশুর মস্তিস্কের বিকাশ ঘটায় : গবেষণায় দেখা গেছে, আখরোটে থাকা ভিটামিন ই, মোলাটোন, ওমেগা ৩, এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশে বিশেষভাবে সাহায্য করে। তাই ছোটবেলা থেকেই শিশুদের আখরোট খাওয়ানোর অভ্যাস করা দরকার।

ওজন নিয়ন্ত্রণ করে : বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত আখরোট খেলে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। কারণ এতে থাকা ওমেগা থ্রি, প্রোটিন এবং ফাইবার দেহের ওজন নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে।