রান্নার স্বাদ বাড়াতে মসলার জুড়ি নেই। অনেকের হয়তো জানা নেই, রান্নায় ব্যবহৃত অনেক মসলা হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতেও বেশ কার্যকরী। রান্নায় ব্যবহৃত এমন কিছু মসলা আছে যে গুলি হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতে ও হৃদরোগজনিত জটিলতা কমাতে সাহায্য করে। যেমন-

আদা : ডি কে পাবলিশিংয়ের 'হিলিং ফুডস' বইয়ে আদার বিভিন্ন উপকারিতার কথা বলা হয়েছে। আদায় থাকা অ্যানালজেসিক, শেডেটিভ, অ্যান্টিপাইরেটিক ও অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল প্রভাব এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। সেই সঙ্গে হৃদরোগজনিত নানা জটিলতা কমায়। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত পর্যাপ্ত পরিমাণে আদা খেলে রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের  মাত্রা কমে। ফলে হৃদরোগের ঝুঁকিও কমে।

কাঁচা মরিচ : কাঁচা মরিচ খাবারে স্বাদ বাড়ায়। এছাড়া এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি থাকায় এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। সেই সঙ্গে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে।

দারুচিনি : অনেক রান্নাতে দারুচিনি ব্যবহার করা হয়। এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান হৃদরোগজনিত জটিলতা কমায়।

এলাচ : এলাচে ভিটামিন এ, ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, আয়রন, কপার এবং অন্যান্য পুষ্টিগুণ থাকায় এটি রক্ত জমাট বাঁধা প্রতিরোধ করে। সেই সঙ্গে হৃৎপিণ্ডের স্বাস্থ্য ভালো রাখে।

রসুন : রসুনে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান থাকায় চিকিৎসকরা প্রায়ই হৃদরোগীদের রসুন খাওয়ার পরামর্শ দেন। নিয়মিত রসুন খেলে কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমে। সেই সঙ্গে রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস পায়।

সরিষা : আমেরিকান জার্নাল অফ ক্লিনিকাল নিউট্রিশনের একটি গবেষণা অনুসারে, প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় সরিষার তেল যোগ করলে তা হৃৎপিণ্ডের জন্য উপকারী হবে। সরিষার বীজে উচ্চ পরিমাণে উপকারী মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড থাকায় এটি কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে  রক্ত চলাচল উন্নত করে।