কয়েকমাস করোভাইরাসের প্রকোপ কমার পর আবারও এই ভাইরাসের সংক্রমণ তীব্র আকার ধারণ করেছে। গতবারের চেয়ে এবার আরও দ্রুত গতিতে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মানার বিকল্প নেই। তাদের ভাষায়, ঘরের বাইরে বের হলে মাস্ক ব্যবহার, স্যানিটাইজার ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়লেও জীবনের প্রয়োজনে অনেককে মুদি দোকান বা অন্যান্য শপিং সেন্টারে কেনাকাটা সারতে যেতে হেচ্ছে। এই সময় কেনাকাটা থেকে ফিরে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে কিছু অভ্যাস গড়ে তোলা জরুরি। যেমন-

ঘরে প্রবেশের আগে স্যানিটাইজার ব্যবহার : বাইরে বের হলে শরীরে অসংখ্য ব্যাকটেরিয়া, বিভিন্ন জীবাণুর সংস্পর্শ লাগতে পারে, যা আপনার সুরক্ষার জন্য ঝুঁকি তৈরি করতে পারে।  এ কারণে মুদি দোকান বা অন্যান্য কেনাকাটা করতে গেলে অবশ্যই পকেটে বা ব্যাগে স্যানিটাইজার রাখুন। কেনাকাটা শেষে ঘরে প্রবেশের আগে এটি ব্যবহার করুন। এছাড়াও, বাইরে থাকাকালীন সময়ে হাত দিয়ে মুখ স্পর্শ করা এড়িয়ে চলুন।

ব্যাগ, চাবি, মোবাইল ফোন মেঝেতে রাখুন
:  ঘরে ফিরেই শপিং ব্যাগ, চাবি, পার্স এবং মোবাইল জীবাণুমুক্ত করার জন্য মেঝেতে রেখে দিন। প্রয়োজনে এতে জীবাণুনাশক ব্যবহার করুন।

জুতা, পোশাক পরিবর্তন করুন :  কেনাকাটা সেরে ফিরে জুতা ঘরের বাইরে খুলে সরাসরি বাথরুমে যান। পোশাক পরিবর্তন করে হালকা গরম পানিতে গোসল সেরে নিন।। জুতা কয়েক ঘন্টা বাইরে রেখে দিন। ঘরে আনতে চাইলে জুতায় জীবাণুণাশক স্প্রে করুন।

মাস্ক পরিষ্কার করুন : বাইরে বের হলে আজকাল অনেকেই কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার করছেন। কেনাকাটা সেরে ফিরে দ্রুত মাস্কটি ধুয়ে ফেলুন।

জিনিসপত্র ধরার আগে হাত ধোয়া  : দোকানের জিনিসপত্র বের করার আগে ২০ সেকেন্ড ধরে সাবান পানি দিয়ে হাত পরিষ্কার করুন। ঘরে কোন কিছু স্পর্শ করার আগে অবশ্যই হাত ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।

ব্যাগগুলো ফেলে দিন : দোকান থেকে আপনাকে যে ব্যাগগুলো দেয়া হয়েছে সেগুলি দ্রুত ফেলে দিন। যদি ব্যাগগুলি আবার ব্যবহারের উপযোগী হয় তাহলে জীবাণুমুক্ত করে সংরক্ষণ করুন।

জিনিসপত্র গোছানোর পর হাত পরিষ্কার
: মুদি দোকানের পণ্য বা বাইরে থেকে আনা পণ্য থেকে ব্যাকটেরিয়া ছড়াতে পারে। এ কারণে ব্যাগ থেকে জিনিসপত্রগুলি বের করে যথাস্থানে রাখার পর আবারও সাবান পানি দিয়ে হাত পরিষ্কার করুন। সূত্র :টাইমস অব ইন্ডিয়া

মন্তব্য করুন