দাঁত পড়ে যাওয়া নিয়ে আর চিন্তা নয়। শিশুদের মতো সব বয়সের মানুষের পড়ে যাওয়া দাঁত পুনরায় গজাবে! মুখের এই অবিচ্ছেদ্য ও অতিপ্রয়োজনীয় অংশের জিনগত চিকিৎসা পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন গবেষকরা। তৈরি করা হয়েছে অ্যান্টিবডি, যার সাহায্যে একটি নির্দিষ্ট জিনকে দমিয়ে রেখেই সমাধান করা যাবে ফোকলা সমস্যার। এতে কমে আসবে খরচও। গবেষণার প্রথম ধাপে ইঁদুর ও বেজির মতো স্তন্যপায়ী প্রাণীর দেহে ওই অ্যান্টিবডি প্রয়োগ করে সাফল্য পাওয়া গেছে। এদের নতুন করে দাঁত গজিয়েছে। এবার কুকুর ও শূকরের ওপর গবেষণা চালানো হবে। এরপর মানুষের দেহে প্রয়োগ করা হবে।

মানুষের দাঁত পড়ে যাওয়ার সমস্যা নিয়ে গবেষণা করছেন জাপানের কিয়োটো ইউনিভার্সিটি গ্র্যাজুয়েট স্কুল অব মেডিসিনের গবেষকরা। তারা জানার চেষ্টা করছেন, কীভাবে শিশুদের পড়ে যাওয়া দাঁত পুনরায় গজায় আর কেন অন্য বয়সীদের বেলায় তা হয় না। প্রথমে শরীরে থাকা বিভিন্ন রাসায়নিক, যেগুলো দাঁতের বৃদ্ধির জন্য সহায়ক সেগুলোকে নিয়ে কাজ শুরু করেন। কিন্তু শরীরের ওপর এর উল্টো প্রভাব পড়ে। পরে আবিস্কার হয় 'ইউএসএজি-১' নামে একটি জিন। এটি সক্রিয় থাকলে দাঁতের বৃদ্ধি বাধা পায় এবং নিষ্ফ্ক্রিয় হলে দাঁত বৃদ্ধি পায়। ইঁদুর ও বেজির 'ইউএসএজি-১' জিন নিষ্ফ্ক্রিয় করার পর দেখা গেছে, এদের নতুন দাঁত গজিয়েছে। সূত্র :ডেইলি মেইল।