বিয়ের পর দম্পতির মধ্যে সম্পর্কটা কী রূপ নেবে তা আগে থেকে কেউ বলতে পারে না। অনেক সময় দেখা যায় সম্পর্কের ক্ষেত্রে কোন সঙ্গী একটু বেশি রক্ষণশীল হয়ে পড়ে। সে নিজের আধিপত্য দেখাতে চায় সঙ্গীর ওপর। এর কারণ হলো ব্যক্তির ব্যক্তিগত মানসিকতা। মনোবিদদের মতে, কেউ একজন আধিপত্য দেখাতে চাইলেই সম্পর্কে জটিলতা শুরু হয়। এমন হলে একজন আরেকজনের ওপর জোর দেখাতে চেষ্টা করেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এ ধরনের সমস্যা যাতে বড় আকার নিতে না পারে এজন্য শুরু থেকেই কিছু ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। যেমন-

সতর্ক হোন : যে মুহূর্ত থেকে মনে হচ্ছে সঙ্গী আপনার উপরে আধিপত্য করার চেষ্টা করছেন তখন থেকে সাবধান হয়ে যান। সব সময় মুখ বুজে থাকার মানসিকতা থেকে সরে আসুন। সঙ্গীকে ভুল মনে হলে তাকে বোঝান। তা না হলে ধীরে ধীরে এ সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করবে।

কথা শেয়ার করুন: দুজনেই দুজনের কাছে মনের সব কথা খুলে বলুন। একে অপরের ভালো লাগা এবং খারাপ লাগাগুলো না বুঝলে সম্পর্ক কোনদিনই ভালো পথে এগোবে না এটা দুজনকেই বুঝতে হবে। সঙ্গী বেশি আধিপত্য দেখালে তার কারণ জানতে চান। হতে পারে তিনি সন্দেহের বশে আপনাকে দমিয়ে রাখতে চান অথবা তিনি আপনার প্রতি তার শাসন একটু বেশিই দেখাতে চান যাতে আপনি শান্ত থাকেন। এজন্য দুজনের কথা বলা প্রয়োজন।

দুজনের মত নিয়ে চলা: যে কোনো ছোটখাটো বিষয়ে দুজনেই দুজনের মত অপরের উপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন না। খাবার খাওয়া কিংবা সিনেমা দেখা, বেড়াতে যাওয়া যাই হোক না কেন দুজনে দুজনের পছন্দগুলোকে গুরুত্ব দিন।

পজেসিভনেস কাটিয়ে ওঠা : ঈর্ষা, ভয়, সঙ্গীর ওপর অবিশ্বাসসহ আরও অনেক কিছুর উৎপত্তি হয় পজেসিভনেস থেকে। তাই সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে এই ব্যাপারটা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করা উচিত। যদি এই ব্যাপারটা কারও মাঝে চলে আসে, তাহলে অবশ্যই সঙ্গী কিংবা বন্ধুর সঙ্গে কথা বলা উচিত। সঙ্গীর কোন দিকটা আপনার খারাপ লাগছে, কিংবা কোন ব্যাপারটা কষ্ট দিচ্ছে, তা নিয়ে খোলাখুলি কথা বলুন। এতে সম্পর্ক ভালো থাকবে। মনে রাখবেন, জোর করলে কোনো সম্পর্কই দীর্ঘদিন টিকতে পারে না।

মন্তব্য করুন