রাজবাড়ীতে করোনার সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় জেলার সদরসহ তিন পৌর এলাকায় কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। ২১ জুন দিবাগত রাত ১২টা থেকে এ বিধিনিষেধ কার্যকর হবে। রোববার সন্ধ্যায় রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ জেলা কমিটির সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম সভায় সভাপতিত্ব করেন। এ সময় রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী, রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামান, রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডা. ইব্রাহীম হোসেন টিটন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যড. ইমদাদুল হক বিশ্বাস, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহমি মো. সায়েফ, তিন পৌরসভার মেয়রবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

রাতেই জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে জেলা সদর, পাংশা ও গোয়ালন্দ এই তিন পৌর এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করে গণবিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, বিধিনিষেধ চলাকালীন কোনো প্রকার যানবাহন লকডাউন এলাকায় প্রবেশ ও বের হতে পারবে না। এক্ষেত্রে অ্যম্বুলেন্স, খাদ্য সামগ্রী, জরুরি পণ্য বহনকারী ট্রাক এ আদেশের আওতামুক্ত থাকবে। শপিং মল, মার্কেট, বিপণী বিতান বন্ধ থাকবে। তবে কাঁচাবাজার ও মুদি দোকান সকাল ছয়টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে খোলা থাকবে। এ ছাড়া সন্ধ্যা সাতটা থেকে সকাল ছয়টা পর্যন্ত জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাড়ির বাইরে বের হতে পারবেন না। রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যাবে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত ১৪ দিনে করোনা শনাক্তের হার ছিল রাজবাড়ী সদরে ৩৬ শতাংশ, পাংশায় ৪০ শতাংশ এবং গোয়ালন্দে  ৮৬ শতাংশ। সংক্রমণ ক্রমেই ঊর্ধ্বমুখী হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।