করোনা মহামারিতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সবসময় সব পরিস্থিতিতে সাবান পানি দিয়ে হাত ধোওয়া সম্ভব হয়ে ওঠে না, বিশেষ করে বাড়ির বাইরে বের হলে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। তখন হ্যান্ড স্যানিটাইজারের প্রয়োজন পড়ে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার গুরুত্বপূর্ণ হলেও অনেকেই এর সঠিক ব্যবহার ও বিধিনিষেধ সম্পর্কে জানেন না।

হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের ক্ষেত্রে যা করণীয়-

১. পাবলিক প্লেসের যেসব স্থান সবচেয়ে বেশি স্পর্শ করা হয়, যেমন - দরজার হাতল, টয়লেটের ফ্ল্যাশ, টেবিল টপ, ইত্যাদি জায়গা স্পর্শ করলে অবশ্যই হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।

২. হ্যান্ড স্যানিটাইজার যেন অ্যালকোহলভিত্তিক অর্থাৎ এর মধ্যে যেন অবশ্যই ৬০ থেকে ৯৫ শতাংশ অ্যালকোহল থাকে। কম অ্যালকোহলযুক্ত বা অ্যালকোহল ছাড়া স্যানিটাইজার জীবাণুর বিরুদ্ধে কার্যকর নয়।

৩. হাত এবং হাতের প্রতিটি আঙুল ভালোভাবে স্যানিটাইজ করুন। স্যানিটাইজার নিয়ে, দুটি হাতের সব জায়গায় ২০ থেকে ৩০ সেকেন্ড পর্যন্ত ঘষুন, যতক্ষণ না পর্যন্ত হাত শুকনো হচ্ছে।

৪. অ্যালোভেরা জেলের সাথে ৮০ শতাংশ ইথানল বা ৭৫ শতাংশ আইসোপ্রোপানল যোগ করে, নিজেই ঘরোয়া ভাবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করতে পারেন। এক্ষেত্রে অ্যালকোহল এবং অ্যালোভেরা জেলের অনুপাত ২:১ হতে হবে।

৫. মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, এমন হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করবেন না। মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া হ্যান্ড স্যানিটাইজারে অ্যালকোহলের পরিমাণ হ্রাস পায় এবং কার্যক্ষমতাও কমে যায়।

হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের ক্ষেত্রে যা করবেন না-

১. হাত যদি ময়লা অথবা চিটচিটে থাকে, তবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করবেন না। বরং হালকা গরম পানি ও সাবান দিয়ে হাত ভালো করে ধুয়ে নিন।

২. হাতে স্যানিটাইজার নিয়ে কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড পুরো হাত ভালো করে ঘষুন। হাতে স্যানিটাইজার নেওয়া মাত্রই মুছে বা ধুয়ে ফেলবেন না, তাহলে স্যানিটাইজার জীবাণুনাশে কার্যকর হবে না।

৩. কোনও রাসায়নিক অথবা বিষাক্ত কীটনাশক স্পর্শ করলে হাত পরিষ্কার করতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করবেন না। বরং এক্ষেত্রে, সাবান এবং হালকা গরম পানি দিয়ে হাত ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।

৪. হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের পরিবর্তে, শিশুদের সাবান ও পানি দিয়ে ভালো করে হাত ধুতে উৎসাহিত করুন। কারণ শিশুদের ক্ষেত্রে, স্যানিটাইজার ভুলবশত খেয়ে ফেলার সম্ভাবনা থাকে। যা অল্প পরিমাণে পেটে গেলেও, মারাত্মক বিষক্রিয়া হতে পারে।

৫. হ্যান্ড স্যানিটাইজার অতিরিক্ত পরিমাণে ব্যবহার করবেন না। কারণ অতিরিক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের ফলে, ত্বক শুষ্ক এবং রুক্ষ হয়ে উঠতে পারে।

৬. হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করার পর, খাবার খাওয়ার আগে অথবা রান্নার আগে, অবশ্যই হাত ভালো করে সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন। কিছু কিছু হ্যান্ড স্যানিটাইজারে প্রোপানল উপাদানটি থাকে, যা কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের উপর খারাপ প্রভাব ফেলতে পারে।

৭. যেকোনও খাবার, শাকসবজি এবং ফল পরিষ্কার করার সময়, হ্যান্ড স্যানিটাইজার একেবারেই ব্যবহার করবেন না।