চা কমবেশি সবারই পছন্দ। বাড়িতে, অফিসে, পাড়ার মোড়ে আড্ডা দিতে গিয়ে অনেকেই দিনে প্রায় পাঁচ থেকে ছয় বার চা পান করেন। কিন্তু অনেকেরই হয়তো জানা নেই দিনে খুব বেশি চা পান শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। তবে সেটা চা পাতার ধরণ এবং কী পরিমাণ চা পান করা হচ্ছে তার উপর নির্ভর করে। সাধারণত, এক কাপ চায়ে ক্যাফিনের পরিমাণ ২০-৬০ মিলিগ্রামের মধ্যে থাকে। এ কারণে প্রতিদিন তিন কাপের বেশি চা না পান করার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

অতিরিক্ত চা পানে শনীরের যেসব ক্ষতি হতে পারে-

শরীরে আয়রন শোষণ ক্ষমতা হ্রাস কররে : চায়ের মধ্যে পাওয়া ট্যানিন প্রচুর পরিমাণে গ্রহণ করলে শরীরের আয়রন শুষে নেওয়ার ক্ষমতা কমায়। কলোরাডো স্টেট ইউনিভার্সিটির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চা আয়রন শোষণের ক্ষমতা ৬০ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে আনতে পারে।

ওষুধের প্রভাব হ্রাস করতে পারে : গবেষণায় দেখা গেছে, অতিরিক্ত চা খাওয়া কিছু অ্যান্টিবায়োটিকের কার্যকারিতা হ্রাস করতে পারে। চা কেমোথেরাপির ওষুধ, ক্লোজাপাইন এবং গর্ভনিরোধক ওষুধের উপর প্রভাব হ্রাস করতে পারে।

মাথা ঘোরা : চায়ের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ক্যাফেইন থাকে, যার ফলে মাথা ঘোরাতে পারে। যখন কেউ বেশি পরিমাণে অর্থাৎ ৪০০-৫০০ মিলিগ্রামেরও বেশি ক্যাফিন গ্রহণ করে তখন এটি ঘটে।

গর্ভাবস্থার জটিলতা : গর্ভাবস্থায় বেশি পরিমাণে চা খাওয়া ক্যাফিনের ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে। এটি গর্ভপাত এবং শিশুর জন্মের ওজন হতে পারে। এ কারণে গর্ভাবস্থায় দিনে ২০০ মিলিগ্রামের বেশি ক্যাফিন খাওয়া ঠিক নয়।

অ্যাসিড রিফ্লাক্সের সমস্যা : অত্যধিক চা খেলে অ্যাসিড রিফ্লাক্সের সমস্যা বাড়তে পারে। এটি অন্ত্রে অ্যাসিডের উৎপাদন বাড়াতে পারে। বুক জ্বালা সমস্যা থাকলে চা খাওয়ার ব্যাপারে সতর্ক হওয়া উচিত। তা না হলে সমস্যা আরও বাড়তে পারে।

বিষয় : চা পান অতিরিক্ত চা পান চায়ের গুণাগুণ

মন্তব্য করুন