বরগুনার পাথরঘাটায় মাটি খুঁড়ে মা ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পাথরঘাটা সদর ইউনিয়নের উত্তর হাতেমপুর গ্রামে খালপাড় থেকে শাহিন মুন্সীর স্ত্রী সুমাইয়া (১৮) ও তার নয় মাস বয়সী মেয়ে সামিরার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনার পর থেকে শাহিন পলাতক। জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য শাহিনের পরিবারের চারজনকে আটক করা হয়েছে।

পাথরঘাটা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. তোফায়েল আহম্মেদ ঘটার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সুমাইয়ার বাবা রিপন হাওলাদার বলেন, আমি এবং খলিল মুন্সী দুজন প্রতিবেশী। দেড় বছর আগে আমার মেয়ে ও খলিলের ছেলে শাহিনের বিয়ে হয়। সেই থেকে তাদের সংসারে প্রায়ই দম্পত্য কলহ চলে। এর মধ্যে তাদের সংসারে একটি কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। গত বুধবারা আমার মেয়ে ও নাতনী আমার বাড়ি থেকে শাহিনের বাড়ি যায়। পরদিন সকালে আমি ফোনে নাতি ও মেয়ের খবর নিতে গেলে তাদের ফোন বন্ধ পাই। ওই সময় আমি শাহিনের বাড়ি গেলে শাহিনের মা শাহিনুর বেগম জানান, সুমাইয়া ও তার সন্তানকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। পরে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ নেওয়ার পর বিষয়টি মঙ্গলবার পাথরঘাটা থানাকে জানানো হয়। শনিবার সকালে পুলিশ গ্রামের লোকজন নিয়ে শাহিনের বাড়ি তল্লাশি করতে গেলে খালের পাড়ে একটি গর্তের ভেতর মাটি চাপা অবস্থায় মরদেহ দু’টি উদ্ধার করে।

পাথরঘাটা থানার ওসি মো. আবুল বাসার জানান, আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করার পর শাহিনের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে। শাহিনকে আটক করতে অভিযান চলছে।