সুস্বাদু মসলা হিসেবে দারুচিনি ব্যাপকভাবে পরিচিত। শুধু রান্নায় গন্ধ বৃদ্ধি নয়, শরীর ও ত্বকের জন্য মসলাটি উপকারী। নিয়মিত দারুচিনি খেলে যেসব স্বাস্থ্য উপকারিতা পাওয়া যায়-

হৃগরোগের আশঙ্কা কমায়
: গবেষণায় দেখা গেছে, যাদের টাইপ টু ডায়াবেটিস আছে তারা প্রত্যেকদিন আধ চা চামচ করে দারুচিনি  খেলে ট্রাইগ্লিসারাইড বা খারাপ কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমে। এতে হৃৎপিণ্ডের স্বাস্থ্য ভালো থাকে।

প্রদাহ কমায় : শরীরে যে কোনও ধরনের প্রদাহ কমানোর ক্ষমতা রয়েছে এই মসলায়। কোনও টিস্যুর ক্ষতি হলে বা শরীরে কোথায় আঘাত পেলে দারুচিনি খেলে উপকারিতা পাওয়া যায়।

অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রয়েছে : ২৬ রকমের মসলার মধ্যে দারুচিনিতে সবচেয়ে বেশি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায়। প্রতিদিন এই মসলা খেলে স্বাস্থ্যের পাশাপাশি ত্বকের উজ্জ্বলতাও বাড়ে।

মেদ ঝরাতে সাহায্য করে : রোজ সকালে স্মুদির মধ্যে এক চিমটে দারুচিনি গুঁড়ো ফেলে দিন। এটা শরীরের বিপাকের হার বাড়াতে সাহায্য করে। তাই শরীরচর্চার পর যদি কোনও রকম স্বাস্থ্যকর পানীয় খাওয়ার অভ্যাস থাকে, তার মধ্যেও দিতে পারেন এই গুঁড়ো।

ইনসুলিন হরমোনের কাজে সাহায্য করে : টাইপ টু ডায়াবেটিসের মতো কোনও রোগ থাকলে শরীর ইনসুলিন হরমোনের সঙ্গে ঠিক মতো মানিয়ে নিতে পারে না। সেই কাজে সাহায্য করে দারুচিনি।

রক্তে শর্করার মাত্রা কমায় : প্রতিদিন ২ চা চামচ করে দারুচিনি খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

ক্যানসারের ঝুঁকি কমায় : এক গবেষণায় দেখা গেছে, অন্ত্রের ক্যান্সার নিয়ন্ত্রণে কার্যকর দারুচিনি। নিয়মিত দারুচিনি খেলে অন্ত্রের ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে।