ফাইনালে লড়বেন দু'দলের ২২ যোদ্ধা। আর ম্যাচের ছক কষছেন দু'দলের দুই কোচ। ওয়েম্বলিতে আজ ইংল্যান্ড ও ইতালির মধ্যকার ইউরোর ফাইনালের আগে ঘুম হারাম ইংলিশ কোচ গ্যারেথ সাউথগেট ও ইতালির কোচ রবার্তো মানচিনির। প্রতিপক্ষের সেরা অস্ত্রকে কীভাবে থামানো যায়, সে চিন্তাই এখন কাজ করছে দুই কোচের মাথায়। তাই মাঠের লড়াইয়ের মধ্যে ডাগআউটের দুই কোচের লড়াইয়ের দিকেও বাড়তি দৃষ্টি থাকবে সবার।

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছিল ইংল্যান্ড। সেই বিদায়ের পরও সাউথগেটের ওপর আস্থা হারায়নি ইংলিশরা। বুদ্ধি ও মেধা প্রয়োগ করে ইংল্যান্ডের এই দলকে বিশ্বমানে নিয়ে গেছেন সাউথগেট। তার হাত ধরেই ৫৫ বছর পর ফুটবলের কোনো মেজর টুর্নামেন্টের ফাইনালে থ্রি লায়ন্সরা। এখন তো ১৯৬৬ বিশ্বকাপের পর আরেকটি ট্রফি জয়ের স্বপ্ন দেখছে তারা। 

আর মানচিনি-পূর্ব ইতালির ছবিটা ছিল খুবই খারাপ। ২০১৮ সালের বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জনই করতে পারেনি ইতালি, যা তাদের ফুটবল ইতিহাসে ৬০ বছরের মধ্যে প্রথম। তারপর দলের দায়িত্ব নিয়ে টানা ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত মানচিনির ইতালি। প্রথাগত ডিফেন্স প্রধান ফুটবলে আমূল পরিবর্তন এনে ইতালির খেলা অনেক দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় করেছেন তিনি। চিরচেনা প্রথা থেকে বের হয়ে ইতালির ফুটবলে আধুনিকতায় ছোঁয়া এনে দেওয়ায় মানচিনি প্রশংসা পেয়েছেন আজকের ফাইনালে তার প্রতিপক্ষ ইংলিশ কোচ সাউথগেটেরও, 'ওরা (ইতালি) এখন উদ্যমী। দুরন্ত ফুটবল খেলছে। আধুনিক ফুটবলের রূপকার তিনি (মানচিনি)।'