তীব্র গরমের পর বৃষ্টি মানেই গরম থেকে মুক্তি। তবে স্বস্তির পাশাপাশি বর্ষাকালে নানারকম অসুখ-বিসুখও দেখা দেয়। এই সময় সর্দি-কাশি, জ্বর, পেটের সমস্যা, হজমের গোলমাল লেগেই থাকে। তাই চিকিৎসকরা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর দিকেই বেশি জোর দেন। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়নো জরুরি। এ সময় খাদ্যতালিকায় এমন কিছু খাবার রাখা উচিত যাতে শরীর সুস্থ থাকে।

পুষ্টিবিদদের মতে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে টক দইয়ের জুড়ি নেই । এতে থাকা প্রোবায়োটিক শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। পেটের সমস্যা, হজমের সমস্যা দূর করে। টক দই আছে উপকারী ভিটামিন-ডিও। এই ভিটামিন ঠান্ডা লাগার সমস্যা, জ্বর, সর্দিকাশি প্রতিরোধে সাহায্য করে, যেগুলি বর্ষাকালের রোগ বলেই বেশি পরিচিত। এ কারণে ফলের সঙ্গে মিশিয়েও টক দই খেতে পারেন। টক দই শুধু পেটের জন্যই ভালো নয়, বর্ষার সময়ে ফ্লু আটকাতেও এর জুড়ি মেলা ভার। পেটের নানা সমস্যা বেশি দেখা যায় বর্ষাকালে। দই খেলে তা অনেক কমে যায়। তবে, অ্যাজমা এবং সাইনাসের সমস্যা থাকলে দই এড়িয়ে চলা উচিত।

পুষ্টিবিদদের মতে, প্রতিদিন নিয়ম করে যদি অন্তত এক বাটি ঘরে পাতা টক দই খাওয়া যায়, তাহলে একাধিক শারীরিক সমস্যা দূরে সরিয়ে রাখা সম্ভব। দুপুরের খাবার খাওয়ার পর দই খাওয়া শরীরের পক্ষে খুবই ভালো। কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে, দরকারের থেকে বেশি যেন দ‌ই না খেয়ে ফেলা হয়।

বিষয় : বর্ষাকাল টক দই উপকারী দই

মন্তব্য করুন