বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে , কিছু কিছু উদ্ভিজ্জ খাবারে এমনই পুষ্টিগুণ থাকে যেগুলো শরীরে নানা রোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। এমনই একটি সবজি হচ্ছে ব্রকলি। এই সবজিটির আশ্চর্য কিছু গুণ রয়েছে।

পুষ্টিবিদদের মতে, একই খাবারে নানা রকমের ভিটামিন ও খনিজ পেতে হলে ব্রকলির মতো আর কিছুই হয় না। এক কাপ কাঁচা ব্রকলি কুচির মধ্যে ৩১ ক্যালোরি, দশমিক শূন্য ৩ গ্রাম ফ্যাট, ৩০ মিলিগ্রাম সোডিয়াম, ২ দশমিক ৪ গ্রাম ফাইবার, ১ দশমিক ৫ গ্রাম গ্লুকোজ, ২ দশমিক ৫ গ্রাম প্রোটিন থাকে। এ ছাড়াও থাকে এতে ভিটামিন এ, বি, সি, কে পাওয়া যায়। এই সবজিতে আরও পাওয়া যায় ম্যাঙ্গানিজ ও পটাসিয়াম। সব মিলিয়ে ব্রকলি হলো পুষ্টিগুণে পরিপূর্ণ একটি খাদ্য।

খাদ্যের এত রকম উপাদান এতে উপস্থিত থাকায় শরীরের নানা ধরনের উপকারও করে ব্রকলি। প্রথমত এর ফাইবার হজমশক্তি বাড়ায়। ফলে এই সবজি খেলে শরীর সতেজ থাকে। এতে আছে প্রদাহ কমানোর ক্ষমতাও। এর পাশাপাশি এতে উপস্থিত বিভিন্ন ধরনের অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট শরীরের প্রতিরোধশক্তি বাড়ায়।

এক গবেষণায় দেখা গেছে, ব্রকলিতে যে ফলিক এসিড পাওয়া যায় তা স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে বেশ উপকারী। ব্রকলিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন কে থাকে । এক কাপ পরিমাণে টুকরো করে কাটা ব্রকলিতে ৯২ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন কে থাকে , যা শরীরের শতভাগ ভিটামিন কে এর চাহিদা পূরণ করে। ভিটামিন কে হাড়ের সুরক্ষার জন্য অতি প্রয়োজনীয় একটি উপাদান। এ কারণে ব্রকলি হাড়ের সুরক্ষায় সহায়তা করে।

অনেকেই হয়তো জানেন না , মাত্র এক কাপ টুকরো করা ব্রকলিতে ৮১ মিলিগ্রাম পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে। যা একদিনে শরীরে প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশি। এছাড়া ব্রকলিতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এ এবং ই থাকে যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায় এবং বয়সের ছাপ রোধ করে।