চলছে সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গোৎসব। পাড়ায় পাড়ায় তৈরি হয়েছে পূজা মণ্ডপ। ঠাকুর দেখার পাশাপাশি বাড়িতে বাড়িতে চলছে সুস্বাদু রান্নার আয়োজনও। উৎসবের এ আমেজে মজাদার খাবার যোগ করবে ভিন্ন মাত্রা। দুর্গোৎসব উপলক্ষ্যে বাড়িতে তৈরি করতে পারেন বাহারি সব রান্না। যেমন-



আলু ভাজা

উপকরণ : মাঝারি আকৃতির আলু ৫ থেকে ৬ টি, তেল পরিমাণমতো, জিরা সামান্য, লবণ স্বাদমতো , হলুদ গুড়া সামান্য

প্রস্তুত প্রণালী : আলু লম্বা লম্বা করে কেটে আধ ঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এবার পানি ঝরিয়ে আলাদা একটা পাত্রে আলুগুলো রেখে দিন। এখন এতে হলুদ গুঁড়া আর লবণ লাগিয়ে ৫ মিনিট রেখে দিন। কড়াইয়ে তেল গরম করুন। তাতে আস্ত জিরা দিন এবং আলুর স্ট্রিপগুলো ছাড়ুন। বাদামি রঙ হলে আলুগুলো নামিয়ে নিন। ভাজা আলুগুলো টিস্যু কিংবা পেপারে রাখুন। তাহলে বাড়তি তেল ঝরে যাবে। মুচমুচে আলু ভাজা গরম গরম পরিবেশন করুন।



ফুলকপির ডালনা


উপকরণ : দুই কাপ পরিমাণে কাটা ফুলকপি, কাটা আলু এক কাপ, টমেটো কুচি আধা কাপ, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ ,হলুদ গুড়া , জিরা গুড়া, মরিচ গুড়া ,ধনিয়া গুড়া আধা চামচ করে, চিনি ১ চামচ, দারুচিনি ১ টুকরো, এলাচ ২/৩ টি, তেজ পাতা ২ টি, কাঁচা মরিচ কয়েকটি, লবণ স্বাদমতো, তেল পরিমাণ মতো।

প্রস্তুত প্রণালী : কড়াইয়ে তেল গরম করুন। এতে আস্ত জিরা, দারুচিনি, লবঙ্গ , তেজপাতা দিয়ে ভাজতে থাকুন। ১ মিনিট পরে এতে আলুর টুকরা দিয়ে ভালভাবে ভাজুন। ৫ মিনিট পর এতে ফুলকপি যোগ করুন। আরও কয়েক মিনিট ভাজতে থাকুন। এবার এতে সব মসলা, টমেটো, লবণ ও চিনি দিন। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে ২ থেকে ৩ মিনিট রান্না করুন। কাঁচা মরিচ দিন। সবজি সিদ্ধ হলে নামিয়ে ফেলুন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল মজাদার ফুলকপির ডালনা।



 কষা মাংস


উপকরণ : ২৫০ গ্রাম খাসির মাংস, ২ টেবিল চামচ করে আদা , রসুন বাটা , টক দই পরিমাণ মতো, হলুদ, জিরা, ধনিয়া, মরিচের গুড়া এক চামচ করে, দারুচিনি ৩/৪ টা, শুকনা মরিচ ৩ টি, তেজপাতা ৩ টি , চিনি সামান্য, লবণ স্বাদমতো, গরম মসলার গুড়া ১ চামচ, আস্ত রসুন টুকরা কয়েকটি।

প্রস্তুত প্রণালী : প্রথমে মাংসের সঙ্গে আদা, রসুন বাটা, হলুদ গুঁড়া, টক দই ও গরম মসলা মিশিয়ে মেরিনেট করে রাখুন ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা। এবার কড়াইয়ে তেল গরম করে তাতে দারুচিনি, লবঙ্গ, তেজপাতা আর আস্ত রসুনের টুকরাগুলি দিন।যখন রসুনগুলো বাদামি হয়ে আসবে তখন এতে ম্যারিনেট করা মাংসগুলো দিয়ে অল্প আঁচে রান্না করুন। একটু পর পর নাড়তে থাকুন যাতে লেগে না যায়। ভালভাবে কষাতে কষাতে রান্না করুন যতক্ষণ না মাংসগুলো সিদ্ধ হয়। নামানোর আগে ঘি দিন। গরম গরম পরোটা অথবা পোলাওয়ের সঙ্গে কষা মাংস পরিবেশন করুন।



চিংড়ির মালাইকারী


উপকরণ : বড় চিংড়ি ২৫০ গ্রাম, আস্ত জিরা ২ গ্রাম, আদা-রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ করে, জিরা গুড়া, ধনিয়া গুঁড়া, মরিচের গুঁড়া ১ চামচ করে, ১চামচ গরম মসলা গুড়া, লবণ স্বাদমতো, ১২০ গ্রাম নারিকেলের দুধ, ১ চামচ ঘি।

প্রস্তুত প্রণালী : প্রথমে চিংড়িগুলোতে হলুদ গুঁড়া মাখিয়ে একটা পাত্রে রেখে দিন। একটি কড়াইয়ে তেল গরম করে তাতে আস্ত জিরা, আদা-রসুন বাটা দিয়ে নাড়তে থাকুন। এরপর এতে সব গুঁড়া মসলাগুলো মিশিয়ে নাড়ুন। চিংড়িগুলো মসলার মধ্যে দিয়ে নাড়তে থাকুন। এবার এতে নারিকেলের দুধ যোগ করুন। অল্প আঁচে রান্না করুন।পরোটো কিংবা পোলাওয়ের সঙ্গে গরম গরম মালাইকারি পরিবেশন করুন।