কুমিল্লার ঘটনা নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে পদ হারিয়েছেন যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহসভাপতি মিরাজ হোসেন মিঠু। দলীয় আদর্শ ও সংগঠনবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। 

যশোর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত শনিবার তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

স্থানীয় ছাত্রলীগ সূত্রে জানা যায়, গদখালী ছাত্রলীগের সহসভাপতি মিরাজ তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্ট্যাটাস দেন, যা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় তোলে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে উপজেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে জেলা ছাত্রলীগের কাছে সুপারিশ পাঠানো হয়।

যশোর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সালাউদ্দীন কবির পিয়াস জানান, ঘটনাটি জানার সঙ্গে সঙ্গে জরুরি সভা করে তাকে পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছি। এ ছাড়া জেলার আর কেউ এ ধরনের কাজ করেছেন কিনা, তা খতিয়ে দেখছি।

এদিকে বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা মিরাজ তার কাজের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন। এ বিষয়ে ফেসবুক পোস্টে তিনি বলেন, ওই স্ট্যাটাসের জন্য সবার কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। না বুঝে স্ট্যাটাস দিয়েছি। এমন ভুল আর কখনও হবে না। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান- আমরা সবাই ভাই ভাই। সবাই একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করে যাব।

ছাত্রলীগ সূত্রে আরও জানা গেছে, বাহাত্তরের সংবিধান ফিরিয়ে আনা ও ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার বিষয়ে বক্তব্য দেওয়ায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে নিয়ে বিতর্কিত স্ট্যাটাস দিয়েছেন কেশবপুর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি কাজী মানিক, শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি জিল্লুর রহমান রাজ, বাঘারপাড়া উপজেলার বাসুয়াড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহসভাপতি এমএম টিপু সুলতান।