কথায় বলে, প্রতিদিন একটি করে আপেল খেলে অসুখ বিসুখ ছেড়ে পালায়। কথাটা অনেকটাই ঠিক। কারণ আপেলে থাকা নানা গুণ রোগপ্রতিরোধ শক্তি বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু কেউ যদি প্রতিদিন তিন-চারটি করে আপেল খান তাহলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

চিকিৎসকরা বলছেন, এক জন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ রোজ দু’টি করে আপেল খেতে পারেন। কিন্তু তার বেশি খাওয়া মোটেই ভালো নয়। এ জন্য আপেল নিজে যতটা না দায়ী, তার চেয়েও বেশি দায়ী আপেল চাষ করার সময়ে ব্যবহার করা কীটনাশক। তাদের ভাষায়, আপেলের সঙ্গে থাকা ক্ষতিকারক কীটনাশক শরীরে গেলে নানা ধরনের বিপদ হতে পারে। এছাড়াও অতিরিক্ত আপেল খেলে আরও যেসব সমস্যা হতে পারে-

১. বেশি পরিমাণে আপেল খেলে তাতে থাকা কীটনাশক পাকস্থলীর নানা সমস্যা বাড়িয়ে দেয়। এমনকি পাকস্থলীর ক্যান্সারের আশঙ্কাও বেড়ে যেতে পারে। পাকস্থলীর ক্ষতি হতে পারে। মলদ্বারের নানা অসুখ হতে পারেও এর কারণে। এর পাশাপাশি রক্তে দূষিত পদার্থের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া, শরীরে নানা ধরনের বিষক্রিয়া হওয়ার সমস্যাও হতে পারে।

২. শুধু কীটনাশক নয়, আপেল চকচকে করতে অনেকসময় কৃত্রিম মোমও ব্যবহার করা হয় এর গায়ে। প্রাকৃতিক ভাবে আপেলের গায়ে অল্প মোম জাতীয় পদার্থ থাকে। কিন্তু সেটি বেশি দিন টেকে না। তার পরে আপেল তাজা রাখতে এবং চকচকে করতে অনেকে এর গায়ে মোম এবং পেট্রোলিয়াম জেল লাগানো হয়। এগুলিও পেটে যায়। পাকস্থলীতে গিয়ে এই মোম এবং পেট্রোলিয়াম জেল জমা হয়। এটিও ক্যান্সারসহ নানা অসুখের আশঙ্কা বাড়িয়ে দেয়।

৩. প্রতি দিন দু’টির বেশি আপেল খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়তে পারে। এছাড়া হজমের সমস্যা এবং ওজন বাড়ার সমস্যাও হতে পারে।

৪. অতিরিক্ত আপেল খেলে দাঁতের ক্ষতিও হতে পারে। যাঁদের দাঁত বা মাড়ির সমস্যা আছে, আপেল খাওয়ার আগে তাদের চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।