শরীরে পানির ঘাটতি হলেই পিপাসা পায় । কিন্তু শীতকালে বেশিরভাগ সময়ই তা বোঝা যায় না । কিন্তু শীতকালে তাপমাত্রা কম থাকার কারণে ত্বকের পাশাপাশি শরীরও খুব তাড়াতাড়ি শুষ্ক হয়ে যায়।  এ কারণে এ সময়ে কম পানি খেলে নানা শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমন-

১. শীতে কম পানি খেলে শরীরের ভিতরের যে আর্দ্র ভাব প্রয়োজন, তা আর থাকে না । এতে শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দেয়।

২. শরীরের ভিতরটা বেশি শুষ্ক হয়ে গেলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

৩.পানি কম পেলে শরীরের ভিতরের অ্যাসিড বেশি হয়ে যেতে পারে। এতে টানা গ্যাসের সমস্যা হতে পারে।

৪. পানি শরীর সতেজ রাখে। তার থেকে কর্ম ক্ষমতাও বাড়তে পারে। পানি কম খাওয়া হলে শরীর ভিতর থেকে শুকিয়ে যায়। ফলে ক্লান্তি আসে। এত কাজের ক্ষমতাও কমে যেতে পারে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এসব কারণে শীতের সময়ে পিপাসা না পেলেও তাই নিয়ম করে পানি খাওয়া জরুরি। খুব ঠান্ডা দিনে হাল্কা গরম পানি খেলে শরীরে আরামও লাগবে।