ঢাকা মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪

রং করলেই কি চুল পড়া বাড়ে? 

রং করলেই কি চুল পড়া বাড়ে? 

প্রতীকী ছবি

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩ | ১৫:২৪ | আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩ | ১৫:২৪

প্রকৃতির নিয়মে বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রায় প্রত্যেকের চুলেই পাক ধরতে শুরু করে। কারও আবার অল্প বয়সেই চুল পাকতে শুরু করে । কেউ কেউ নিজের এই পরিবর্তন মেনে নিলেও, অধিকাংশই এটা মেনে নিতে পারেন না। 

পাকা চুল ঢেকে রাখতে অনেকেই নিয়মিত রং করেন । তবে অনেকে আবার শুধুমাত্র স্টাইলিংয়ের জন্যেও চুলে রং করতে ভালোবাসেন। এদিকে এসব হেয়ার ডাই-এর যে যথেষ্ট পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও রয়েছে সেটা অনেকেই মানতে চান না। 

অনেকের মতে, নিয়মিত হেয়ার কালার করলে অতিরিক্ত পরিমাণে চুল ঝরতে শুরু করে। সত্যিই কি তাই? এ ব্যাপারে ভারতীয় ত্বকরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আঁচল পন্থ তাঁর একটি ইনস্টাগ্রাম এক ভিডিও শেয়ার করেছেন। হেয়ার কালারের সঙ্গে চুল পড়ার আদৌ কোনও যোগ রয়েছে কিনা সেখানে তা জানিয়েছেন তিনি। 

ডা. আঁচল পন্থ বলেন, নিয়মিত হেয়ার ডাই ব্যবহারের কারণে চুলে অবশ্যই ক্ষতিকারক প্রভাব পড়ে। বিশেষ করে চুল অত্যন্ত রুক্ষ হয়ে যায়। আর চুলের প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতাও নষ্ট হয়। এমনকী হেয়ার কালার করার কারণে চুল ফ্রিজিও হতে পারে। কিন্তু হেয়ার ডাই ব্যবহারের জন্য সাধারণত অতিরিক্ত পরিমাণে চুল পড়ে না।

ডা. আঁচল পন্থ জানান, হেয়ার কালারে ব্যবহৃত রাসায়নিকের প্রভাবে কারও কারও অ্যালার্জির সমস্যা হয়। তাদের ক্ষেত্রে চুলে রং করার পরেই প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। যেমন- মাথার ত্বক লাল হয়ে যেতে পারে। মাথার ত্বকে চুলকানি শুরু হতে পারে এবং ব়্যাশও বেরতে পারে। আর মাথার ত্বকে এই সংক্রমণের কারণেই অতিরিক্ত চুল ঝরে যেতে পারে। কিন্তু স্ক্যাল্পে এমন কোনও সমস্যা দেখা না দিলে চুল পড়ার সম্ভাবনাও থাকে না বলে জানান ডা. পন্থ।

আপনি যদি হেয়ার কালারের প্রতি কোনওভাবে অ্য়ালার্জিক হন, তাহলে এই ধরনের সামগ্রী চুলে না ব্যবহার করাই শ্রেয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। তবে চুলের গোড়া থেকে রং না করালেও কমবে ক্ষতির আশঙ্কা।

সেক্ষেত্রে আপনি চুলের নিচের অংশে রং করাতে পারেন। এতে অ্যালার্জির আশঙ্কাও থাকবে না আর অতিরিক্ত চুল পড়াও থাকবে নিয়ন্ত্রণে।

রং করা চুলের প্রয়োজন বিশেষ যত্ন

হেয়ার কালার করার পরে চুলের বিশেষ উপায়ে যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। তাহলেই চুলের সুস্বাস্থ্য বজায় থাকবে। 
কী করবেন

১. নিয়মিত হেয়ার কন্ডিশনিং করবেন।
২. হেয়ার কালার প্রোটেক্টেড শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন।
৩. অতিরিক্ত হেয়ার প্রোডাক্ট ব্যবহার করবেন না।
৪. হিট টুল ব্যবহার না করাই ভালো।
 

আরও পড়ুন

×