ডায়াবেটিস রোগটি আজকাল প্রায় ঘরে ঘরে।  তারপরও মানুষের মধ্যে এই রোগ নিয়ে কোনও সচেতনতা নেই। বিশেষজ্ঞদের মতে, এটি এমনই এক রোগ যা নিয়ন্ত্রণে না থাকলে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ বিকল হয়ে পড়ে। এ কারণে ডায়াবেটিস রোগীদের কিছু বিষয় অবশ্যই এড়িয়ে চলা উচিত। যেমন-

​ফল না খাওয়া : সাধারণত ডায়াবেটিস রোগীদের খাবার খাওয়ায় নানা ধরনের নিষেধাজ্ঞা থাকে। এক্ষেত্রে মিষ্টি জাতীয় কোনও খাবারই তারা খেতে পারেন না। তবে ফল না খাওয়ার এক্ষেত্রে কোনও কারণ নেই। বিশেষ করে, যেই ফলের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স কম, সেই ধরনের ফল তারা অনায়াসেই খেতে পারেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডায়াবেটিস রোগীদের দিনে অন্তত একটি ফল খাওয়া উচিত। এক্ষেত্রে পেয়ারা, আপেল, লেবু ইত্যাদি ফল  খেতে পারেন। তবে বাজার থেকে কেনা ফলের জ্যুস খেলে কোনও লাভ হবে না। বরং বাজার থেকে ফল কিনে এনে সেই ফলের জুস করে খেতে পারেন।

​বেশি দুশ্চিন্তা : ডায়াবেটিস রোগীর সঙ্গে দুশ্চিন্তার বড়সড় যোগ রয়েছে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, বেশি দুশ্চিন্তা করলে রক্তে সুগারের মাত্রা বেড়ে যায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সুগার থাকলে দুশ্চিন্তা যতটা সম্ভব দূরে রাখতে হবে। এক্ষেত্রে প্রাণায়াম করুন বা অন্য কোনও উপায়ে নিজের মাথা থেকে চিন্তা দূর করুন।

​অনেকক্ষণ না খাওয়া :  বিশেষজ্ঞরা বলছেন, খালি পেটে কোনওভাবেই থাকা যাবে না। খালি পেটে থাকলে শরীরে ইনসুলিনের কার্যকারিতা কমে এবং রক্তে সুগারের মাত্রা বাড়ে। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের এক-দুই ঘণ্টা পরপর খাওয়া উচিত। তবে অবশ্যই একবারে অনেকটা খাওয়া ঠিক নয়। কমকম করে বারবার করে খান।

​ব্যায়াম না করা : ডায়াবিটিস রোগীদের অবশ্যই ব্যায়াম করা উচিত। ব্যায়ামের মাধ্যমে শরীরে থাকা ক্যালোরি ঠিক মতো খরচ হয়। এছাড়া রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রিত করতেও ব্যায়ামের জুড়ি নেই। তাই প্রতিটি ডায়াবেটিস আক্রান্তকে নিয়মিত ব্যায়াম করা উচিত। এক্ষেত্রে রোজ ৩০ মিনিট ব্যায়াম করতে হবে। ঘাম ঝরিয়ে ব্যায়াম করা ভালো। চাইলে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে জিমে গিয়েও ব্যায়াম করতে পারেন।

​চিকিৎসকের পরামর্শ না শোনা
: অনেকেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে চান না। এমনকী চিকিৎসকের বলে দেওয়া পরামর্শও মানেন না।  এমনটা করলে শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ মেনেই চলুন। এতে ভালো থাকবেন।